মুক্তবাণিজ্য চুক্তি করতে সম্মত বাংলাদেশ-সিঙ্গাপুর

বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুর উভয় দেশের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য জোরদারে মুক্তবাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) স্বাক্ষর করতে সম্মত হয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন এবং সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণানের মধ্যে ফোনালাপে গত বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে বলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

ফোনালাপে ড. মোমেন বলেন, ‘বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুরের মধ্যে এফটিএ চুক্তি হলে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ আরও বৃদ্ধির মাধ্যমে উভয়পক্ষ লাভবান হবে। ঢাকা সিঙ্গাপুরকে অর্থনৈতিক উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিবেচনা করে।’

এ সময় ড. মোমেন মায়ানমারে তাদের নিজ দেশে দ্রুত প্রত্যাবর্তন নিশ্চিত করে রোহিঙ্গা সংকটের একটি টেকসই ও স্থায়ী সমাধান আনতে সিঙ্গাপুর ও আসিয়ানের সক্রিয় ভূমিকা কামনা করেন। জবাবে ড. ভিভিয়ান আশ্বাস দিয়ে বলেন, ‘সিঙ্গাপুর এ ব্যাপারে সংকটের স্থায়ী সমাধানের জন্য তাদের অব্যাহত সমর্থন সক্রিয় রাখবে।’ ড. মোমেন চলমান কোভিড-১৯ মহামারীর সময়ে প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকদের প্রতি সিঙ্গাপুর সরকারের অব্যাহত সহায়তার কথা সন্তোষের সঙ্গে উল্লেখ করে বলেন, ‘সিঙ্গাপুর বাংলাদেশ থেকে বিশেষ করে তাদের স্বাস্থ্য ও অন্য পরিষেবা খাতে আরও দক্ষ কর্মী নিয়োগের বিষয়টি বিবেচনা করতে পারে।’

শনিবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২২ , ০১ মাঘ ১৪২৮ ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

মুক্তবাণিজ্য চুক্তি করতে সম্মত বাংলাদেশ-সিঙ্গাপুর

বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুর উভয় দেশের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য জোরদারে মুক্তবাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) স্বাক্ষর করতে সম্মত হয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন এবং সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণানের মধ্যে ফোনালাপে গত বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে বলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

ফোনালাপে ড. মোমেন বলেন, ‘বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুরের মধ্যে এফটিএ চুক্তি হলে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ আরও বৃদ্ধির মাধ্যমে উভয়পক্ষ লাভবান হবে। ঢাকা সিঙ্গাপুরকে অর্থনৈতিক উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিবেচনা করে।’

এ সময় ড. মোমেন মায়ানমারে তাদের নিজ দেশে দ্রুত প্রত্যাবর্তন নিশ্চিত করে রোহিঙ্গা সংকটের একটি টেকসই ও স্থায়ী সমাধান আনতে সিঙ্গাপুর ও আসিয়ানের সক্রিয় ভূমিকা কামনা করেন। জবাবে ড. ভিভিয়ান আশ্বাস দিয়ে বলেন, ‘সিঙ্গাপুর এ ব্যাপারে সংকটের স্থায়ী সমাধানের জন্য তাদের অব্যাহত সমর্থন সক্রিয় রাখবে।’ ড. মোমেন চলমান কোভিড-১৯ মহামারীর সময়ে প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকদের প্রতি সিঙ্গাপুর সরকারের অব্যাহত সহায়তার কথা সন্তোষের সঙ্গে উল্লেখ করে বলেন, ‘সিঙ্গাপুর বাংলাদেশ থেকে বিশেষ করে তাদের স্বাস্থ্য ও অন্য পরিষেবা খাতে আরও দক্ষ কর্মী নিয়োগের বিষয়টি বিবেচনা করতে পারে।’