সহিংসতা না হলে আমার বিজয় নিশ্চিত : আইভী

ভোটকেন্দ্রে কোন ধরনের সহিংসতা কিংবা বিশৃঙ্খলা না হলে বিজয় সুনিশ্চিত বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তিনি বলেন, বিজয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদী। তবে নির্বিঘেœ মানুষ যেন ভোটকেন্দ্রে গিয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন। তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনকে আমি আগেই জানিয়েছি, যাতে ভোটকেন্দ্রে ভোটার যেতে পারেন। নারী ভোটার ও তরুণ ভোটাররা যেন যেতে পারেন। কারণ এ ভোটগুলো আমার। কোন ধরনের সহিংসতা যেন না হয়।’ গতকাল সকালে নিজ বাসায় সংবাদ সম্মেলনে আইভী এসব কথা বলেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যেন এই নির্বাচনকে গুরুত্বের সঙ্গে নেয় সেই অনুরোধ জানান সরকারদলীয় এই মেয়র প্রার্থী। এ নির্বাচনে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে আইভীর সঙ্গে লড়ছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা তৈমুর আলম খন্দকার। সরকারদলীয় নেতাদের নারায়ণগঞ্জে অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তৈমুর। এই প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে আইভী বলেন, ‘আমার বাড়ি নারায়ণগঞ্জ, মানুষও নারায়ণগঞ্জের সুতরাং বহিরাগত কাউকে আনার কোন কারণ নেই।

কেন্দ্রীয় নেতারা তাদের দায়িত্ব পালন করবেন। নানা কারণেই তারা নারায়ণগঞ্জে আসছেন। কিন্তু ওনারা জানেন, আইভী কীভাবে রাজনীতি করেন এবং কীভাবে ভোটারদের আস্থা অর্জন করেছেন। আমার ভরসা জনগণে। নেতারা আসতেই পারে ক্যাম্পিং করতেই পারে, পর্যবেক্ষণ করতেই পারে। কিন্তু তারা আমাকে ফ্রি করে দিয়েছেন। আমি সারাক্ষণই ভোটারদের কাছেই ছিলাম।’

তিনি আরও বলেন, ‘একটা উৎসবমুখর পরিবেশে নারায়ণগঞ্জে নির্বাচন হয়। এই কারণে অনেকেই আসেন। আপনারাও (সাংবাদিক) কিন্তু অনেকেই এসেছেন। এটা উৎসবমুখর পরিবেশের কারণেই হয়েছে।’ আরেক প্রশ্নের জবাবে আইভী বলেন, ‘প্রতিটি নির্বাচনকেই আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছে। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। আইভীকে পরাজিত করতে অনেকগুলো পক্ষ এক হয়ে গিয়েছে। ঘরের-বাইরের সব পক্ষ মিলে গিয়েছে। কীভাবে বিশৃঙ্খলা করে আমাকে পরাজিত করা যায় সেই চিন্তা করছে। কেননা সবাই জানে আমার বিজয় সুনিশ্চিত।’

উল্লেখ্য, ১৬ জানুয়ারি সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ হবে। সব ধরনের প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন।

শনিবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২২ , ০১ মাঘ ১৪২৮ ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সহিংসতা না হলে আমার বিজয় নিশ্চিত : আইভী

ভোটকেন্দ্রে কোন ধরনের সহিংসতা কিংবা বিশৃঙ্খলা না হলে বিজয় সুনিশ্চিত বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তিনি বলেন, বিজয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদী। তবে নির্বিঘেœ মানুষ যেন ভোটকেন্দ্রে গিয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন। তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনকে আমি আগেই জানিয়েছি, যাতে ভোটকেন্দ্রে ভোটার যেতে পারেন। নারী ভোটার ও তরুণ ভোটাররা যেন যেতে পারেন। কারণ এ ভোটগুলো আমার। কোন ধরনের সহিংসতা যেন না হয়।’ গতকাল সকালে নিজ বাসায় সংবাদ সম্মেলনে আইভী এসব কথা বলেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যেন এই নির্বাচনকে গুরুত্বের সঙ্গে নেয় সেই অনুরোধ জানান সরকারদলীয় এই মেয়র প্রার্থী। এ নির্বাচনে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে আইভীর সঙ্গে লড়ছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা তৈমুর আলম খন্দকার। সরকারদলীয় নেতাদের নারায়ণগঞ্জে অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তৈমুর। এই প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে আইভী বলেন, ‘আমার বাড়ি নারায়ণগঞ্জ, মানুষও নারায়ণগঞ্জের সুতরাং বহিরাগত কাউকে আনার কোন কারণ নেই।

কেন্দ্রীয় নেতারা তাদের দায়িত্ব পালন করবেন। নানা কারণেই তারা নারায়ণগঞ্জে আসছেন। কিন্তু ওনারা জানেন, আইভী কীভাবে রাজনীতি করেন এবং কীভাবে ভোটারদের আস্থা অর্জন করেছেন। আমার ভরসা জনগণে। নেতারা আসতেই পারে ক্যাম্পিং করতেই পারে, পর্যবেক্ষণ করতেই পারে। কিন্তু তারা আমাকে ফ্রি করে দিয়েছেন। আমি সারাক্ষণই ভোটারদের কাছেই ছিলাম।’

তিনি আরও বলেন, ‘একটা উৎসবমুখর পরিবেশে নারায়ণগঞ্জে নির্বাচন হয়। এই কারণে অনেকেই আসেন। আপনারাও (সাংবাদিক) কিন্তু অনেকেই এসেছেন। এটা উৎসবমুখর পরিবেশের কারণেই হয়েছে।’ আরেক প্রশ্নের জবাবে আইভী বলেন, ‘প্রতিটি নির্বাচনকেই আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছে। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। আইভীকে পরাজিত করতে অনেকগুলো পক্ষ এক হয়ে গিয়েছে। ঘরের-বাইরের সব পক্ষ মিলে গিয়েছে। কীভাবে বিশৃঙ্খলা করে আমাকে পরাজিত করা যায় সেই চিন্তা করছে। কেননা সবাই জানে আমার বিজয় সুনিশ্চিত।’

উল্লেখ্য, ১৬ জানুয়ারি সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ হবে। সব ধরনের প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন।