অবশেষে মামলা নিল পুলিশ!

শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় তিনদিন পর মামলা রেকর্ড করেছে পুলিশ। শুক্রবার গভীর রাতে মামলাটি রেকর্ড করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন পালং মডেল থানার ওসি আক্তার হোসেন।

ওসি আরও জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হারুন অর রশিদ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। শুক্রবার রাত ১২টায় মামলাটি রেকর্ডভুক্ত হয়। মামলা নম্বর ২২ (৪)। মারপিট ও সরকারি কাজে বাধা দান ৪৪৩, ৪৪৭ ও ৩৩২ ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়।

কলেজ শাখার ছাত্রলীগের সভাপতি সোহাগ বেপারী ও সাধারণ সম্পাদক রাসেল জমাদ্দারসহ অজ্ঞাত আরও ২০ জনকে মামলায় আসামি করা হয়েছে।

এজাহার থেকে জানা যায়, গত ৩০ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারি কলেজের ৩০২ কক্ষে বাংলা বিভাগের চতুর্থ (সম্মান) বর্ষের শিক্ষার্থীদের মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছিল। পরীক্ষার দায়িত্ব পালনে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক উপস্থিত হয়েছিলেন। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে সাড়ে ৩টার দিকে কলেজ শাখার সভাপতি সোহাগ বেপারী ও রাসেল জমাদ্দারসহ আরও ২০/২৫ জন ছাত্রলীগ নেতা পরীক্ষাকক্ষে বেআইনিভাবে প্রবেশ করে পরীক্ষা বাধাদানের চেষ্টা করে। তখন বাংলা বিভাগের শিক্ষক বিএম সোহেল ওই কাজে প্রতিবাদ করলে আসামিরা তাকে কিল-ঘুষি-লাথি মেরে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে এবং হত্যার হুমকি দিয়ে ওই কক্ষ ত্যাগ করে।

আরও খবর
ভিন্নভাবে সক্ষম ব্যক্তি, অটিজমদের স্থায়ী বাসস্থান ও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে : প্রধানমন্ত্রী
দিল্লিতে ইন্দিরা-তাজউদ্দীন আলোচনা, টাঙ্গাইলে পাকিস্তান বাহিনীর গণহত্যা
অটিজম শিশুর মায়েদের বিষণ্ণতা ও জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন আশাব্যঞ্জক
রমজানে পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে বিশেষ কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে : শিল্পমন্ত্রী
স্বাস্থ্য খাতে অব্যবস্থাপনা ও অনিয়মের সঙ্গে বাড়ছে বৈষম্য
প্রবাসীর স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার বলি একরামুল
রংপুরে পরকীয়ায় যুবককে বাসায় ডেকে হত্যা, দম্পতি আটক
ডিসেম্বরেই আ’লীগের জাতীয় সম্মেলন
উন্নয়নের রাজনীতিতে বাধা দিলে রুখে দাঁড়াবো : আইভী
প্ররোচনাকারীদের শাস্তি দাবিতে মানববন্ধন

রবিবার, ০৩ এপ্রিল ২০২২ , ২০ চৈত্র ১৪২৮ ৩০ শাবান ১৪৪৩

শিক্ষক লাঞ্ছনা

অবশেষে মামলা নিল পুলিশ!

প্রতিনিধি, শরীয়তপুর

শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় তিনদিন পর মামলা রেকর্ড করেছে পুলিশ। শুক্রবার গভীর রাতে মামলাটি রেকর্ড করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন পালং মডেল থানার ওসি আক্তার হোসেন।

ওসি আরও জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হারুন অর রশিদ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। শুক্রবার রাত ১২টায় মামলাটি রেকর্ডভুক্ত হয়। মামলা নম্বর ২২ (৪)। মারপিট ও সরকারি কাজে বাধা দান ৪৪৩, ৪৪৭ ও ৩৩২ ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়।

কলেজ শাখার ছাত্রলীগের সভাপতি সোহাগ বেপারী ও সাধারণ সম্পাদক রাসেল জমাদ্দারসহ অজ্ঞাত আরও ২০ জনকে মামলায় আসামি করা হয়েছে।

এজাহার থেকে জানা যায়, গত ৩০ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারি কলেজের ৩০২ কক্ষে বাংলা বিভাগের চতুর্থ (সম্মান) বর্ষের শিক্ষার্থীদের মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছিল। পরীক্ষার দায়িত্ব পালনে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক উপস্থিত হয়েছিলেন। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে সাড়ে ৩টার দিকে কলেজ শাখার সভাপতি সোহাগ বেপারী ও রাসেল জমাদ্দারসহ আরও ২০/২৫ জন ছাত্রলীগ নেতা পরীক্ষাকক্ষে বেআইনিভাবে প্রবেশ করে পরীক্ষা বাধাদানের চেষ্টা করে। তখন বাংলা বিভাগের শিক্ষক বিএম সোহেল ওই কাজে প্রতিবাদ করলে আসামিরা তাকে কিল-ঘুষি-লাথি মেরে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে এবং হত্যার হুমকি দিয়ে ওই কক্ষ ত্যাগ করে।