উন্নয়নের রাজনীতিতে বাধা দিলে রুখে দাঁড়াবো : আইভী

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘সন্ত্রাস বা দখলদারিত্বের রাজনীতি করি না। আমি উন্নয়নের রাজনীতি করি। এই উন্নয়নের রাজনীতিতে কেউ বাধা দিলে রুখে দাঁড়াবো।’

গতকাল বিকেলে নগরীর ৮ নম্বর ওয়ার্ডে গোদনাইল ক্যানেলপাড় এলাকায় গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এইসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে টানা তৃতীয়বারের মতো নাসিক মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় ডা. আইভীকে এলাকাবাসী গণসংবর্ধনা প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সেলিনা হায়াৎ আইভী আরও বলেন, গত ১৯ বছরে কোন কাউন্সিলরের পেছনে অন্য কাউকে তিনি দাঁড় করাননি। নগরীর সিদ্ধিরগঞ্জ অঞ্চলে অনেক দলাদলি থাকলেও তাতে কান দেননি। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদেরও বিভেদ ও ভয় ভুলে গিয়ে উন্নয়নের রাজনীতির সহযোগী হওয়ার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ‘যারা গায়ের রক্ত পানি করে, জীবন বাজি রেখে আওয়ামী লীগ করেছে, পঁচাত্তরের পট-পরিবর্তনের পর দলকে সংগঠিত করেছে এখন তাদের আমরা অবমূল্যায়ন করি। তাদের কথা সাহস করে বলি না। আমি একজন নারী হয়েও অত্যন্ত সাহসিকতার সঙ্গে সিটি করপোরেশন চালাচ্ছি। অনেক বিভেদের রাজনীতি হয়েছে। এখন আসেন উন্নয়নের রাজনীতির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করি।’

সিটি মেয়র আইভী আরও বলেন, ‘আপনারা সবাই জানেন, আমার বাবা আলী আহাম্মদ চুনকা মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। আর তাকে রাজাকার বানাতে চায়। আর রাজাকারদের মুক্তিযোদ্ধা বানাতে চায়। নারায়ণগঞ্জ কোথায় গিয়ে ঠেকেছে! এত মিথ্যা, অত্যাচার, অন্যায় সহ্য করবো না। কারণ আমি এই শহরের, এই নারায়ণগঞ্জের মানুষ।’ স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তি ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, প্রসিদ্ধ রাজাকারকে মুক্তিযোদ্ধা বানানোর চেষ্টা হচ্ছে। এইটা করবেন না। তাহলে ভবিষ্যতে আপনাদের সন্তানদের মানুষ ধিক্কার দেবে। বীরত্বের সঙ্গে এই দেশকে স্বাধীন করেছেন। সুতরাং জুজুর ভয়ে নারায়ণগঞ্জে এই কাজ কইরেন না।

নাসিকের ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন মিয়া, নাসিকের ১০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইফতেখায়রুল খোকন প্রমুখ। স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা, সমাজসেবক ও বিশিষ্টজন এই সময় উপস্থিত ছিলেন।

image

গতকাল নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের গোদনাইল এলাকায় মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে গণসংবর্ধনা দেয়া হয় - সংবাদ

আরও খবর
ভিন্নভাবে সক্ষম ব্যক্তি, অটিজমদের স্থায়ী বাসস্থান ও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে : প্রধানমন্ত্রী
দিল্লিতে ইন্দিরা-তাজউদ্দীন আলোচনা, টাঙ্গাইলে পাকিস্তান বাহিনীর গণহত্যা
অটিজম শিশুর মায়েদের বিষণ্ণতা ও জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন আশাব্যঞ্জক
রমজানে পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে বিশেষ কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে : শিল্পমন্ত্রী
স্বাস্থ্য খাতে অব্যবস্থাপনা ও অনিয়মের সঙ্গে বাড়ছে বৈষম্য
প্রবাসীর স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার বলি একরামুল
রংপুরে পরকীয়ায় যুবককে বাসায় ডেকে হত্যা, দম্পতি আটক
ডিসেম্বরেই আ’লীগের জাতীয় সম্মেলন
অবশেষে মামলা নিল পুলিশ!
প্ররোচনাকারীদের শাস্তি দাবিতে মানববন্ধন

রবিবার, ০৩ এপ্রিল ২০২২ , ২০ চৈত্র ১৪২৮ ৩০ শাবান ১৪৪৩

উন্নয়নের রাজনীতিতে বাধা দিলে রুখে দাঁড়াবো : আইভী

প্রতিনিধি, নারায়ণগঞ্জ

image

গতকাল নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের গোদনাইল এলাকায় মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে গণসংবর্ধনা দেয়া হয় - সংবাদ

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘সন্ত্রাস বা দখলদারিত্বের রাজনীতি করি না। আমি উন্নয়নের রাজনীতি করি। এই উন্নয়নের রাজনীতিতে কেউ বাধা দিলে রুখে দাঁড়াবো।’

গতকাল বিকেলে নগরীর ৮ নম্বর ওয়ার্ডে গোদনাইল ক্যানেলপাড় এলাকায় গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এইসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে টানা তৃতীয়বারের মতো নাসিক মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় ডা. আইভীকে এলাকাবাসী গণসংবর্ধনা প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সেলিনা হায়াৎ আইভী আরও বলেন, গত ১৯ বছরে কোন কাউন্সিলরের পেছনে অন্য কাউকে তিনি দাঁড় করাননি। নগরীর সিদ্ধিরগঞ্জ অঞ্চলে অনেক দলাদলি থাকলেও তাতে কান দেননি। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদেরও বিভেদ ও ভয় ভুলে গিয়ে উন্নয়নের রাজনীতির সহযোগী হওয়ার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ‘যারা গায়ের রক্ত পানি করে, জীবন বাজি রেখে আওয়ামী লীগ করেছে, পঁচাত্তরের পট-পরিবর্তনের পর দলকে সংগঠিত করেছে এখন তাদের আমরা অবমূল্যায়ন করি। তাদের কথা সাহস করে বলি না। আমি একজন নারী হয়েও অত্যন্ত সাহসিকতার সঙ্গে সিটি করপোরেশন চালাচ্ছি। অনেক বিভেদের রাজনীতি হয়েছে। এখন আসেন উন্নয়নের রাজনীতির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করি।’

সিটি মেয়র আইভী আরও বলেন, ‘আপনারা সবাই জানেন, আমার বাবা আলী আহাম্মদ চুনকা মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। আর তাকে রাজাকার বানাতে চায়। আর রাজাকারদের মুক্তিযোদ্ধা বানাতে চায়। নারায়ণগঞ্জ কোথায় গিয়ে ঠেকেছে! এত মিথ্যা, অত্যাচার, অন্যায় সহ্য করবো না। কারণ আমি এই শহরের, এই নারায়ণগঞ্জের মানুষ।’ স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তি ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, প্রসিদ্ধ রাজাকারকে মুক্তিযোদ্ধা বানানোর চেষ্টা হচ্ছে। এইটা করবেন না। তাহলে ভবিষ্যতে আপনাদের সন্তানদের মানুষ ধিক্কার দেবে। বীরত্বের সঙ্গে এই দেশকে স্বাধীন করেছেন। সুতরাং জুজুর ভয়ে নারায়ণগঞ্জে এই কাজ কইরেন না।

নাসিকের ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন মিয়া, নাসিকের ১০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইফতেখায়রুল খোকন প্রমুখ। স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা, সমাজসেবক ও বিশিষ্টজন এই সময় উপস্থিত ছিলেন।