বাণিজ্য বাড়াতে মেক্সিকো-বাংলাদেশ বিজনেস প্ল্যাটফর্ম চালু

বাংলাদেশ ও মেক্সিকোর ব্যবসায়ীদের একটি সমন্বিত প্ল্যাটফর্মে আনা এবং দু’দেশের বাণিজ্য বাড়াতে ভার্চুয়াল বিজনেস প্ল্যাটফর্ম অফ মেক্সিকো-বাংলাদেশ চালু করা হয়েছে। গত সোমবার রাতে মেক্সিকান বিজনেস কাউন্সিল ফর ফরেন ট্রেড, ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড টেকনোলজি (কমসে) কর্তৃক আয়োজিত এক ওয়েবিনারে এই প্ল্যাটফর্মের উদ্বোধন করা হয়।

ওয়েবিনারে এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘১৯৭৫ সালে বাংলাদেশ ও মেক্সিকোর মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক শুরু হয়। এরপর দুদেশের মধ্যে বাণিজ্যের পরিমাণ ধীরে ধীরে বাড়লেও এখনও সম্ভাবনার পুরোটা কাজে লাগানো যায়নি।’

বাংলাদেশে ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং অনুকূল বিনিয়োগ নীতি তুলে ধরে কৃষিভিত্তিক পণ্য, হিমায়িত মাছ, এফএমসিজি, পাট ও চামড়াজাত পণ্য, অটোমোবাইল, ফার্মাসিউটিক্যালস, প্লাস্টিক পণ্য, হোম টেক্সটাইল, হালকা প্রকৌশল, সিরামিক, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে গবেষণা ও উন্নয়নে মেক্সিকোকে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানান এফবিসিসিআই সভাপতি।

ওয়েবিনারে এফবিসিসিআই পরিচালক আবুল কাসেম খান বাংলাদেশ ও মেক্সিকোর মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্ভাবনার উপর একটি পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন।

ভারতে মেক্সিকোর রাষ্ট্রদূত (বাংলাদেশের সমসাময়িক) ফেদেরিকো সালাস লোটফে, মেক্সিকোতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মিস আবিদা ইসলাম, কমসে’র ভাইস চেয়ারম্যান ও এশিয়া প্যাসিফিক বিজনেস সেকশন চেয়ারম্যান অ্যাম্বাসেডর সার্জিও লে, কমসে’র এশিয়া প্যাসিফিক বিজনেস সেকশন ভাইস- চেয়ারম্যান অগাস্টিন গার্সিয়া রেচি, এফবিসিসিআই পরিচালক প্রীতি চক্রবর্তী এবং মহাসচিব মোহাম্মদ মাহফুজুল হক ওয়েবিনারে উপস্থিত ছিলেন। ওয়েবিনারটি সঞ্চালনা করেন কমসে’র এশিয়া প্যাসিফিক বিজনেস সেকশন ম্যানেজার জেসিকা অর্টিজ।

বুধবার, ০৬ এপ্রিল ২০২২ , ২৩ চৈত্র ১৪২৮ ০৪ রমাদ্বান ১৪৪৩

বাণিজ্য বাড়াতে মেক্সিকো-বাংলাদেশ বিজনেস প্ল্যাটফর্ম চালু

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

বাংলাদেশ ও মেক্সিকোর ব্যবসায়ীদের একটি সমন্বিত প্ল্যাটফর্মে আনা এবং দু’দেশের বাণিজ্য বাড়াতে ভার্চুয়াল বিজনেস প্ল্যাটফর্ম অফ মেক্সিকো-বাংলাদেশ চালু করা হয়েছে। গত সোমবার রাতে মেক্সিকান বিজনেস কাউন্সিল ফর ফরেন ট্রেড, ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড টেকনোলজি (কমসে) কর্তৃক আয়োজিত এক ওয়েবিনারে এই প্ল্যাটফর্মের উদ্বোধন করা হয়।

ওয়েবিনারে এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘১৯৭৫ সালে বাংলাদেশ ও মেক্সিকোর মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক শুরু হয়। এরপর দুদেশের মধ্যে বাণিজ্যের পরিমাণ ধীরে ধীরে বাড়লেও এখনও সম্ভাবনার পুরোটা কাজে লাগানো যায়নি।’

বাংলাদেশে ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং অনুকূল বিনিয়োগ নীতি তুলে ধরে কৃষিভিত্তিক পণ্য, হিমায়িত মাছ, এফএমসিজি, পাট ও চামড়াজাত পণ্য, অটোমোবাইল, ফার্মাসিউটিক্যালস, প্লাস্টিক পণ্য, হোম টেক্সটাইল, হালকা প্রকৌশল, সিরামিক, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে গবেষণা ও উন্নয়নে মেক্সিকোকে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানান এফবিসিসিআই সভাপতি।

ওয়েবিনারে এফবিসিসিআই পরিচালক আবুল কাসেম খান বাংলাদেশ ও মেক্সিকোর মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্ভাবনার উপর একটি পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন।

ভারতে মেক্সিকোর রাষ্ট্রদূত (বাংলাদেশের সমসাময়িক) ফেদেরিকো সালাস লোটফে, মেক্সিকোতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মিস আবিদা ইসলাম, কমসে’র ভাইস চেয়ারম্যান ও এশিয়া প্যাসিফিক বিজনেস সেকশন চেয়ারম্যান অ্যাম্বাসেডর সার্জিও লে, কমসে’র এশিয়া প্যাসিফিক বিজনেস সেকশন ভাইস- চেয়ারম্যান অগাস্টিন গার্সিয়া রেচি, এফবিসিসিআই পরিচালক প্রীতি চক্রবর্তী এবং মহাসচিব মোহাম্মদ মাহফুজুল হক ওয়েবিনারে উপস্থিত ছিলেন। ওয়েবিনারটি সঞ্চালনা করেন কমসে’র এশিয়া প্যাসিফিক বিজনেস সেকশন ম্যানেজার জেসিকা অর্টিজ।