যাত্রীদের ভিক্ষুক মনে করে বিমান

যাত্রীদের সঙ্গে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের কাউন্টারের আচরণ ভিক্ষুকদের মতো। তারা যাত্রীদের সঙ্গে অসহযোগিতাপূর্ণ আচরণ করে বলে অভিযোগ করেছেন কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার মোহাম্মদ রিয়াদ সরকার নামের এক যাত্রী।

তিনি বলেন, গত মঙ্গলবার দুপুর ৩টায় বিমানের ফ্লাইটে তার সৌদি আরব যাওয়ার কথা ছিল। বিমানবন্দরে এসে তিনি জানতে পারলেন ফ্লাইট ছাড়তে দেরি হবে। এ বিষয়ে জানতে তিনি বিমানের কাউন্টারে যান। গিয়ে কোন সহযোগিতা তো পানইনি উপরন্তু তার সঙ্গে এমন ব্যবহার করা হয়েছে যেন তিনি কোন অপরাধী।

তিনি আরও বলেন, বিমানের কাউন্টারে গেলে তারা আমার সঙ্গে কথা তো ঠিক মতো বলেই না। মনে হয় আমি যেন ভিক্ষুক। ভিক্ষুকের মতো আচরণ করেন তারা। স্বাভাবিকভাবে তাদের কাছে কোন সহযোগিতাই পাওয়া যায় না।

গত মঙ্গলবার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আয়োজিত গণশুনানিতে যাত্রীরা এ ধরনের নানা অভিযোগ তুলে ধরেন।

এ অভিযোগ শুনে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান গণশুনানিতে উপস্থিত বিমানের প্রতিনিধির খোঁজ করেন।

এ সময় দেশি-বিদেশি বিভিন্ন এয়ারলাইন্সের প্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকলেও বিমানের কোন প্রতিনিধি ছিলেন না।

এতে বেবিচক চেয়ারম্যান অসন্তোষ প্রকাশ করেন এবং বিমানের প্রতিনিধিকে ৫ মিনিটের মধ্যে গণশুনানিতে উপস্থিত হতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেন।

১০ মিনিট পর গণশুনানিতে উপস্থিত হন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের স্টেশন ম্যানেজার আরিফুজ্জামান খান। তিনি রিয়াদ সরকারের অভিযোগ প্রসঙ্গে গণশুনানিতে বলেন, আমরা দুঃখ প্রকাশ করছি। উনার বিষয়টি শুনে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।

এ সময় বেবিচক চেয়ারম্যান রিয়াদকে বলেন, আপনার সঙ্গে এমন ঘটনার জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। এটা বিমান ঠিক করেনি। বিমানবন্দরে কেউ ঠিকমতো সেবা না পেলে হেল্পডেস্ক আছে, ম্যাজিস্ট্রেটরা আছেন। অভিযোগ পেলে দোষীদের শাস্তি দেয়া হয়। বিমানবন্দরে প্রত্যেককেই জবাবদিহি করতে হয়। যারা সেবা দিতে ব্যর্থ হন, তাদের জরিমানা করা হয়।

আরও খবর
পুলিশের কাছ থেকে রিকশা ছাড়াতে না পেরে চালকের আত্মহত্যা
শরণখোলা হাসপাতালে রোগীকে মেয়াদোত্তীর্ণ স্যালাইন পুশ!
নারায়ণগঞ্জে যুবক হত্যা গ্রেপ্তার ২
৩০ বছর পর চৈত্র মাসে তিস্তায় বন্যা : দিশেহারা শত শত কৃষক
অবৈধ অ্যালুমিনিয়াম কারখানায় অভিযান জরিমানা ৪ লাখ
কৃষক আত্মহত্যায় ওসি অপসারণ দাবিতে আদিবাসীদের স্মারকলিপি
প্রস্তাবিত তামাক করে রাজস্ব বাড়বে চল্লিশ হাজার কোটি টাকা
মির্জাপুরে নারীর গলাকাটা দেহ উদ্ধার
বিধবার জমি পুলিশ প্রহরায় দখলচেষ্টা
ছয় দশক ধরে নেতৃত্ব দিয়ে তারা ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন
দুদক আ’লীগের লোকেদের পরিচ্ছন্ন সার্টিফিকেট দেয় : গয়েশ্বর
৩৫ কোটি মূল্যের কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার : ধৃত ৩

শুক্রবার, ০৮ এপ্রিল ২০২২ , ২৫ চৈত্র ১৪২৮ ০৬ রমাদ্বান ১৪৪৩

গণশুনানিতে অভিযোগ

যাত্রীদের ভিক্ষুক মনে করে বিমান

যাত্রীদের সঙ্গে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের কাউন্টারের আচরণ ভিক্ষুকদের মতো। তারা যাত্রীদের সঙ্গে অসহযোগিতাপূর্ণ আচরণ করে বলে অভিযোগ করেছেন কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার মোহাম্মদ রিয়াদ সরকার নামের এক যাত্রী।

তিনি বলেন, গত মঙ্গলবার দুপুর ৩টায় বিমানের ফ্লাইটে তার সৌদি আরব যাওয়ার কথা ছিল। বিমানবন্দরে এসে তিনি জানতে পারলেন ফ্লাইট ছাড়তে দেরি হবে। এ বিষয়ে জানতে তিনি বিমানের কাউন্টারে যান। গিয়ে কোন সহযোগিতা তো পানইনি উপরন্তু তার সঙ্গে এমন ব্যবহার করা হয়েছে যেন তিনি কোন অপরাধী।

তিনি আরও বলেন, বিমানের কাউন্টারে গেলে তারা আমার সঙ্গে কথা তো ঠিক মতো বলেই না। মনে হয় আমি যেন ভিক্ষুক। ভিক্ষুকের মতো আচরণ করেন তারা। স্বাভাবিকভাবে তাদের কাছে কোন সহযোগিতাই পাওয়া যায় না।

গত মঙ্গলবার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আয়োজিত গণশুনানিতে যাত্রীরা এ ধরনের নানা অভিযোগ তুলে ধরেন।

এ অভিযোগ শুনে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান গণশুনানিতে উপস্থিত বিমানের প্রতিনিধির খোঁজ করেন।

এ সময় দেশি-বিদেশি বিভিন্ন এয়ারলাইন্সের প্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকলেও বিমানের কোন প্রতিনিধি ছিলেন না।

এতে বেবিচক চেয়ারম্যান অসন্তোষ প্রকাশ করেন এবং বিমানের প্রতিনিধিকে ৫ মিনিটের মধ্যে গণশুনানিতে উপস্থিত হতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেন।

১০ মিনিট পর গণশুনানিতে উপস্থিত হন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের স্টেশন ম্যানেজার আরিফুজ্জামান খান। তিনি রিয়াদ সরকারের অভিযোগ প্রসঙ্গে গণশুনানিতে বলেন, আমরা দুঃখ প্রকাশ করছি। উনার বিষয়টি শুনে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।

এ সময় বেবিচক চেয়ারম্যান রিয়াদকে বলেন, আপনার সঙ্গে এমন ঘটনার জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। এটা বিমান ঠিক করেনি। বিমানবন্দরে কেউ ঠিকমতো সেবা না পেলে হেল্পডেস্ক আছে, ম্যাজিস্ট্রেটরা আছেন। অভিযোগ পেলে দোষীদের শাস্তি দেয়া হয়। বিমানবন্দরে প্রত্যেককেই জবাবদিহি করতে হয়। যারা সেবা দিতে ব্যর্থ হন, তাদের জরিমানা করা হয়।