পুনঃতফসিলকৃত ঋণের শুধু সুদকে আয় খাতে নেয়া যাবে না

পুনঃতফসিল করা ঋণের বিপরীতে প্রকৃত আদায় না করে কোনভাবে সুদ আদায় করে তা আয় খাতে স্থানান্তর করা যাবে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গত বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, পুনঃতফসিল করা ঋণের বিপরীতে প্রকৃত আদায় না করেই সুদ আয় হিসেবে দেখাচ্ছে অনেক ব্যাংক।

এটা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনার সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। প্রকৃত ঋণ আদায় ছাড়াই আয় দেখানোর ফলে সাময়িকভাবে ব্যাংকের স্বাস্থ্য ভালো দেখালেও এটা ঋণ শৃঙ্খলার পরিপন্থি বলে মনে করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

২০১২ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর জারি করা প্রজ্ঞাপনের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে বৃহস্পতিবারের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে, কিছু ব্যাংক প্রকৃত আদায় ব্যতিরেকে পুনঃতফসিল করা ঋণে আরোপিত সুদ আয় খাতে স্থানান্তর করেছে। ফলে প্রকৃত অবস্থার তুলনায় ব্যাংকের আয় স্ম্ফীতভাবে দেখানো হচ্ছে।

এতে ব্যাংকের মূলধন ভিত্তি দুর্বল হচ্ছে, যা ব্যাংক খাতের ঋণ শৃঙ্খলার পরিপন্থি।

এ অবস্থায় ব্যাংকের আর্থিক অবস্থার প্রকৃত চিত্রের প্রতিফলন নিশ্চিত করা, মূলধন সুসংহত এবং ব্যাংক খাতে সার্বিক ঋণ শৃঙ্খলার স্বার্থে পুনঃতফসিল করা ঋণের বিপরীতে আরোপিত সুদ প্রকৃত আদায় ছাড়া কোনভাবেই আয় খাতে স্থানান্তর করা যাবে না।

শনিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২২ , ২৬ চৈত্র ১৪২৮ ০৭ রমাদ্বান ১৪৪৩

পুনঃতফসিলকৃত ঋণের শুধু সুদকে আয় খাতে নেয়া যাবে না

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

পুনঃতফসিল করা ঋণের বিপরীতে প্রকৃত আদায় না করে কোনভাবে সুদ আদায় করে তা আয় খাতে স্থানান্তর করা যাবে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গত বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, পুনঃতফসিল করা ঋণের বিপরীতে প্রকৃত আদায় না করেই সুদ আয় হিসেবে দেখাচ্ছে অনেক ব্যাংক।

এটা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনার সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। প্রকৃত ঋণ আদায় ছাড়াই আয় দেখানোর ফলে সাময়িকভাবে ব্যাংকের স্বাস্থ্য ভালো দেখালেও এটা ঋণ শৃঙ্খলার পরিপন্থি বলে মনে করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

২০১২ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর জারি করা প্রজ্ঞাপনের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে বৃহস্পতিবারের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে, কিছু ব্যাংক প্রকৃত আদায় ব্যতিরেকে পুনঃতফসিল করা ঋণে আরোপিত সুদ আয় খাতে স্থানান্তর করেছে। ফলে প্রকৃত অবস্থার তুলনায় ব্যাংকের আয় স্ম্ফীতভাবে দেখানো হচ্ছে।

এতে ব্যাংকের মূলধন ভিত্তি দুর্বল হচ্ছে, যা ব্যাংক খাতের ঋণ শৃঙ্খলার পরিপন্থি।

এ অবস্থায় ব্যাংকের আর্থিক অবস্থার প্রকৃত চিত্রের প্রতিফলন নিশ্চিত করা, মূলধন সুসংহত এবং ব্যাংক খাতে সার্বিক ঋণ শৃঙ্খলার স্বার্থে পুনঃতফসিল করা ঋণের বিপরীতে আরোপিত সুদ প্রকৃত আদায় ছাড়া কোনভাবেই আয় খাতে স্থানান্তর করা যাবে না।