ডিজিটাল রূপান্তরকে শক্তিশালী করতে ইউএনডিপির কৌশলপত্র

জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি) বাংলাদেশে উদ্ভাবনের সংস্কৃতি এবং ডিজিটাল রূপান্তরকে আরও শক্তিশালী করতে ডিজিটাল কৌশলপত্র ২০২২-২৫ প্রণয়ন করছে। কৌশলপত্রটি কীভাবে বাস্তবায়িত হবে, তা যুক্তরাষ্ট্র সফররত বাংলাদেশের আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সামনে উপস্থাপন করেছেন ইউএনডিপির চিফ ডিজিটাল অফিসার রবার্ট ওপ এবং ডিজিটাল পলিসি অ্যান্ড গ্লোবাল পার্টনারশিপের প্রধান ইয়োলান্ডা মা।

আইসিটি বিভাগের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গতকাল নিউইয়র্কে অবস্থিত জাতিসংঘ সদর দপ্তরে অবস্থিত ইউএনডিপি হেড কোয়ার্টারে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এটুআই প্রোগ্রাম, পিটিআইবি, এইচআরপি, ইয়ুথ কোল্যাব এবং সরকারের বিভিন্ন পর্যায়সহ ডিজিটাল সমাজ গঠনে ইউএনডিপির দীর্ঘস্থায়ী সহযোগিতা ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে।

বৈঠকে ইউএনডিপি, আইসিটি বিভাগ, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল, হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং এটুআই যৌথভাবে এজেন্সি টু ইনোভেট এবং ডিজিটাল লিডারশিপ একাডেমি গঠন করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

একইসঙ্গে ডিজিটাল মান, নির্দেশিকা, নীতি এবং আইনের উন্নয়ন এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে এটুআইয়ের সাফল্যের ভিত্তিতে ডিজিটাল সরকার ও অর্থনীতিতে বাংলাদেশ এবং অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে দক্ষিণ-দক্ষিণ সহযোগিতা জোরদার কল্পে একসঙ্গে কাজ করার বিষয়ে একমত পোষণ করা হয়। এটুআই পলিসি এডভাইজার আনির চৌধুরী এ সময় উপস্থিত ছিলেন। এর আগে ইউএনডিপির এশিয়া প্রশান্ত অঞ্চলের প্রধান ক্লেয়ার ভ্যান ডের ভেরেনের সঙ্গে ইউএনডিপি বাংলাদেশ প্রতিদলকে নিয়ে বৈঠক করেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী। সেসময় স্বল্পোন্নত দেশগুলোতে যুব ও শিশুদের জন্য সাইবার নিরাপত্তা সচেতনতা গড়ে তুলতে বাংলাদেশ সরকারের অংশীদারিত্বে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্তর্জাতিক পুরস্কার’ প্রবর্তন নিয়ে আলোচনা হয়।

ইউএনডিপি বাংলাদেশের বেসরকারি সেক্টর পার্টনারশিপ বিশেষজ্ঞ জ্যোতিষ তালুকদার, স্পেশাল সেক্টর পার্টনারশিপ বিশেষজ্ঞ দেবাশিস রায়, কোল্যাক -এর কো লিয়াজোঁ ও সমন্বয় বিশেষজ্ঞ জ্যাকব স্কিম, জেপিও প্রোগ্রাম অ্যানালিস্ট ভেরেনা ভাদ আলোচনায় অংশ নেন।

রবিবার, ০৮ মে ২০২২ , ২৪ বৈশাখ ১৪২৮ ০৫ শাওয়াল ১৪৪৩

ডিজিটাল রূপান্তরকে শক্তিশালী করতে ইউএনডিপির কৌশলপত্র

জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি) বাংলাদেশে উদ্ভাবনের সংস্কৃতি এবং ডিজিটাল রূপান্তরকে আরও শক্তিশালী করতে ডিজিটাল কৌশলপত্র ২০২২-২৫ প্রণয়ন করছে। কৌশলপত্রটি কীভাবে বাস্তবায়িত হবে, তা যুক্তরাষ্ট্র সফররত বাংলাদেশের আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সামনে উপস্থাপন করেছেন ইউএনডিপির চিফ ডিজিটাল অফিসার রবার্ট ওপ এবং ডিজিটাল পলিসি অ্যান্ড গ্লোবাল পার্টনারশিপের প্রধান ইয়োলান্ডা মা।

আইসিটি বিভাগের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গতকাল নিউইয়র্কে অবস্থিত জাতিসংঘ সদর দপ্তরে অবস্থিত ইউএনডিপি হেড কোয়ার্টারে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এটুআই প্রোগ্রাম, পিটিআইবি, এইচআরপি, ইয়ুথ কোল্যাব এবং সরকারের বিভিন্ন পর্যায়সহ ডিজিটাল সমাজ গঠনে ইউএনডিপির দীর্ঘস্থায়ী সহযোগিতা ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে।

বৈঠকে ইউএনডিপি, আইসিটি বিভাগ, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল, হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং এটুআই যৌথভাবে এজেন্সি টু ইনোভেট এবং ডিজিটাল লিডারশিপ একাডেমি গঠন করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

একইসঙ্গে ডিজিটাল মান, নির্দেশিকা, নীতি এবং আইনের উন্নয়ন এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে এটুআইয়ের সাফল্যের ভিত্তিতে ডিজিটাল সরকার ও অর্থনীতিতে বাংলাদেশ এবং অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে দক্ষিণ-দক্ষিণ সহযোগিতা জোরদার কল্পে একসঙ্গে কাজ করার বিষয়ে একমত পোষণ করা হয়। এটুআই পলিসি এডভাইজার আনির চৌধুরী এ সময় উপস্থিত ছিলেন। এর আগে ইউএনডিপির এশিয়া প্রশান্ত অঞ্চলের প্রধান ক্লেয়ার ভ্যান ডের ভেরেনের সঙ্গে ইউএনডিপি বাংলাদেশ প্রতিদলকে নিয়ে বৈঠক করেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী। সেসময় স্বল্পোন্নত দেশগুলোতে যুব ও শিশুদের জন্য সাইবার নিরাপত্তা সচেতনতা গড়ে তুলতে বাংলাদেশ সরকারের অংশীদারিত্বে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্তর্জাতিক পুরস্কার’ প্রবর্তন নিয়ে আলোচনা হয়।

ইউএনডিপি বাংলাদেশের বেসরকারি সেক্টর পার্টনারশিপ বিশেষজ্ঞ জ্যোতিষ তালুকদার, স্পেশাল সেক্টর পার্টনারশিপ বিশেষজ্ঞ দেবাশিস রায়, কোল্যাক -এর কো লিয়াজোঁ ও সমন্বয় বিশেষজ্ঞ জ্যাকব স্কিম, জেপিও প্রোগ্রাম অ্যানালিস্ট ভেরেনা ভাদ আলোচনায় অংশ নেন।