একনেকে ১১টি প্রকল্প অনুমোদন

জাতীয় অর্থনীতি পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) গতকাল ৫ হাজার ৮২৫ দশমিক ৭৪ কোটি টাকা ব্যয় সাপেক্ষ ১১টি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছেন। প্রকল্পগুলোর মধ্যে ১ হাজার ১১৪ দশমিক ৬৩ কোটি টাকার ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেইনিং ইনকিউবেশন সেন্টার (১৪)’ রয়েছে।

একনেকের চেয়ারপার্সন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভায় এই অনুমোদন দেয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি এবং মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ও সংশ্লিষ্ট সচিবরা রাজধানীর শেরে-বাংলা নগর এলাকার এনইসি সম্মেলন কক্ষ থেকে সভায় যোগ দেন।

সভা শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, আজ আনুমানিক ৫ হাজার ৮২৫ দশমিক ৭৪ কোটি টাকা ব্যয়ে মোট ১১টি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, অনুমোদিত ১১টি প্রকল্পের মধ্যে ৮টি নতুন। অন্য তিনটি সংশোধিত।

তিনি আরও বলেন, ‘মোট প্রকল্প ব্যয়ের মধ্যে ৩ হাজার ৯৬৩ দশমিক ৩৮ কোটি টাকা সরকার দেবে এবং ১ হাজার ২২০ দশমিক ৪৬ কোটি টাকা সংগঠনগুলোর নিজস্ব তহবিল থেকে ও ৬৪১ দশমিক ৯০ কোটি টাকা প্রকল্প সহায়তা থেকে আসবে।’

মান্নান জানান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ ২০২৬ সালের ডিসেম্বর মাস নাগাদ ১ হাজার ১১৪ দশমিক ৬৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৪টি আইটি প্রশিক্ষণকেন্দ্র স্থাপন করবে।

সাত বিভাগের ১৪টি জেলায় এই ১৪টি প্রশিক্ষণকেন্দ্র স্থাপন করা হবে। বিভাগগুলো হচ্ছেÑ ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ।

আইটি অথবা হাই-টেক সংশ্লিষ্ট শিল্পগুলোর ব্যবসা কর্মকা- পরিচালনার জন্য অবকাঠামোগত সুবিধা সৃষ্টি করা, আইটি শিল্পের সঙ্গে একাডেমিক সংযোগ স্থাপন ও দেশের প্রতিটি অঞ্চলের বিজনেস প্রসেস আউট সোর্সিং (বিপিও) খাতের তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য একটি প্লাটফর্ম তৈরি করাই ১৪টি জেলায় এই আইটি প্রশিক্ষণ ও ইনকিউবেশন কেন্দ্রগুলো স্থাপনের লক্ষ্য বলে জানান।

মান্নান বলেন, ইনকিউবেশন সেন্টারে অন্তত এসএসসি অথবা সমমানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে গড়ে তোলা হবে। এখানে তাদের আইটি ও আইটিইএ এ দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত করা হবে এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ক্ষেত্রে স্টার্ট-আপ সহায়তার মাধ্যমে উদ্যোক্তা হিসেবে তাদের সফল হতে সহায়তা করা হবে।

বুধবার, ১১ মে ২০২২ , ২৮ বৈশাখ ১৪২৮ ০৮ শাওয়াল ১৪৪৩

একনেকে ১১টি প্রকল্প অনুমোদন

জাতীয় অর্থনীতি পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) গতকাল ৫ হাজার ৮২৫ দশমিক ৭৪ কোটি টাকা ব্যয় সাপেক্ষ ১১টি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছেন। প্রকল্পগুলোর মধ্যে ১ হাজার ১১৪ দশমিক ৬৩ কোটি টাকার ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেইনিং ইনকিউবেশন সেন্টার (১৪)’ রয়েছে।

একনেকের চেয়ারপার্সন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভায় এই অনুমোদন দেয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি এবং মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ও সংশ্লিষ্ট সচিবরা রাজধানীর শেরে-বাংলা নগর এলাকার এনইসি সম্মেলন কক্ষ থেকে সভায় যোগ দেন।

সভা শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, আজ আনুমানিক ৫ হাজার ৮২৫ দশমিক ৭৪ কোটি টাকা ব্যয়ে মোট ১১টি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, অনুমোদিত ১১টি প্রকল্পের মধ্যে ৮টি নতুন। অন্য তিনটি সংশোধিত।

তিনি আরও বলেন, ‘মোট প্রকল্প ব্যয়ের মধ্যে ৩ হাজার ৯৬৩ দশমিক ৩৮ কোটি টাকা সরকার দেবে এবং ১ হাজার ২২০ দশমিক ৪৬ কোটি টাকা সংগঠনগুলোর নিজস্ব তহবিল থেকে ও ৬৪১ দশমিক ৯০ কোটি টাকা প্রকল্প সহায়তা থেকে আসবে।’

মান্নান জানান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ ২০২৬ সালের ডিসেম্বর মাস নাগাদ ১ হাজার ১১৪ দশমিক ৬৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৪টি আইটি প্রশিক্ষণকেন্দ্র স্থাপন করবে।

সাত বিভাগের ১৪টি জেলায় এই ১৪টি প্রশিক্ষণকেন্দ্র স্থাপন করা হবে। বিভাগগুলো হচ্ছেÑ ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ।

আইটি অথবা হাই-টেক সংশ্লিষ্ট শিল্পগুলোর ব্যবসা কর্মকা- পরিচালনার জন্য অবকাঠামোগত সুবিধা সৃষ্টি করা, আইটি শিল্পের সঙ্গে একাডেমিক সংযোগ স্থাপন ও দেশের প্রতিটি অঞ্চলের বিজনেস প্রসেস আউট সোর্সিং (বিপিও) খাতের তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য একটি প্লাটফর্ম তৈরি করাই ১৪টি জেলায় এই আইটি প্রশিক্ষণ ও ইনকিউবেশন কেন্দ্রগুলো স্থাপনের লক্ষ্য বলে জানান।

মান্নান বলেন, ইনকিউবেশন সেন্টারে অন্তত এসএসসি অথবা সমমানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে গড়ে তোলা হবে। এখানে তাদের আইটি ও আইটিইএ এ দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত করা হবে এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ক্ষেত্রে স্টার্ট-আপ সহায়তার মাধ্যমে উদ্যোক্তা হিসেবে তাদের সফল হতে সহায়তা করা হবে।