ভোজ্যতেলের মজুদ, চলছে অভিযান

একদিনে ৪ লাখ ৩৬ হাজার ৬৬৩ লিটার উদ্ধার

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে গতকাল একদিনে মোট ৪ লাখ ৩৬ হাজার ৬৬৩ লিটার ভোজ্যতেল উদ্ধার করা হয়েছে। এতে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা উদ্ধার করেছে ২ লাখ ৬ হাজার ৬৬৩ লিটার। এছাড়া খুলনা জেলা প্রশাসন ও র‌্যাব যৌথভাবে দুই লাখ ৩০ হাজার লিটার উদ্ধার করেছে।

ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ অনুযায়ী, ঢাকা মহানগরের কাপ্তান বাজারসহ দেশব্যাপী মোট ৬৪টি বাজার ও বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পরিচালিত তদারকি কার্যক্রমের মাধ্যমে ভোক্তা-স্বার্থবিরোধী বিভিন্ন অপরাধে ১১৪টি প্রতিষ্ঠানকে ১৮ লাখ ২ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয় বলে জানিয়েছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আবদুল জব্বার মন্ডল জানিয়েছেন, কাপ্তান বাজারে অভিযান চালিয়ে সাড়ে ৯ হাজারেরও বেশি লিটার তেল উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘তারা গত পাঁচ দিনে পুরনো দামে কেনা ৯০ ড্রাম তেল বিক্রি করেছেন। গতকাল অভিযান চালিয়ে ৩৯ ড্রাম তেল পাওয়া গেছে। সেগুলো ন্যায্যমূল্যে বিক্রির ব্যবস্থা করা হয়েছে।’ এছাড়া ৩৬টি জেলায় ২ লাখ ৬ হাজার ৬৬৩ লিটার তেল জব্দ করে ন্যায্যদামে বিক্রি করা হয়েছে। এ সময় জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ভোক্তা ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে লিফলেট, প্যাম্ফলেট বিতরণসহ হ্যান্ডমাইকে সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হয়।

ঈদের আগে থেকেই বাজারে ভোজ্যতেলের এ সংকট চলছে। সরকার তেলের দাম বাড়ানোর পর অধিকাংশ বাজারই ভোজ্যতেলশূন্য। অথচ জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও পুলিশের অভিযানে হঠাৎ করেই পুরো বাংলাদেশ যেন সয়াবিন তেলের ‘খনি’তে পরিণত হয়েছে। কখনও সয়াবিন তেলের ‘খনি’র সন্ধান মিলছে ঘরের বাংকারে আবার কখনও গোডাউনের ভেতরে। দেশকে সয়াবিন তেলের খনিতে পরিণত করেছে অতিমুনাফালোভী ব্যবসায়ীরা। আগের কম দামে তেল কিনে নতুন বাড়তি দামে বিক্রি করতে সারাদেশে তারা লুকিয়ে রেখেছিল সয়াবিন তেল। সেগুলোরই এখন সন্ধান মিলছে এক এক করে।

মাদারীপুর : জেলায় বেশি দামে সয়াবিন তেল বিক্রির দায়ে এক ডিলারের ম্যানেজারকে আটক করেছে স্থানীয়রা। পরে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। গতকাল দুপুরে সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়নের তাঁতিবাড়ি বাজারে এই অভিযান চালানো হয়।

খুলনা : নগরের তিন প্রতিষ্ঠানের আটটি গুদাম থেকে দুই লাখ ৩০ হাজার লিটার ভোজ্যতেল জব্দ করা হয়েছে। ওই তিন প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নগরের স্যার ইকবাল রোডের বড়বাজার এলাকার সিটি ব্যাংক গলিতে অবস্থিত সোনালী এন্টারপ্রাইজ, সাহা ট্রেডার্স ও রণজিৎ অ্যান্ড সন্স নামের তিন প্রতিষ্ঠানে গতকাল দুপুরে এ অভিযান চালানো হয়। জেলা প্রশাসন ও র‌্যাব যৌথভাবে এ অভিযান চালায়।

নরসিংদী : গতকাল বিকেলে জেলার সদর উপজেলার পাঁচদোনা ও মাধবদী বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে জরিমানা আদায় করা হয়। এ সময় অবৈভাবে মজুদকৃত ১১৮ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করে। অবৈধ মজুদের অপরাধে একতা স্টরের স্বত্বাধিকারী মোস্তাফিজুর রহমানকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড দেয়া হয়।

চট্টগ্রাম : তেল বিক্রিতে অনিয়মের অভিযোগে ছোটপোল এলাকার একটি দোকানকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। ওই দোকানটি এক পুলিশ কর্মকর্তার ছেলের। জরিমানার পাশাপাশি দোকানের গোডাউনে থাকা এক হাজার ১৫ লিটার ভোজ্যতেল ন্যায্যমূল্যে সাধারণ মানুষের কাছে বিক্রি করা হয়েছে। গতকাল বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত অধিদপ্তর এ অভিযান পরিচালনা করে।

ঝিনাইদহ : জেলার কালীগঞ্জ শহরের বিহারীমোড় এলাকার আরএস অয়েল মিলের গুদামে অভিযান চালিয়ে ৪২ হাজার ২৪ লিটার সয়াবিন তেল উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বিকেলে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর পরিচালিত এ অভিযানে গুদাম মালিককে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বরিশাল : তেলের বোতল থেকে সর্বোচ্চ খুচরা বিক্রয় মূল্য মুছে ফেলায় ২ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল বিকেলে বাবুগঞ্জ উপজেলার রহমতপুর ও গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে এই জরিমানা আদায় করা হয়।

অভিযান পরিচালনা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. শাহ শোয়াইব মিয়া।

মৌলভীবাজার : জেলার বড়লেখায় একজন তেলের ডিলারসহ ৪ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ৫৬ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। পাশাপাশি তেলের ডিলারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটিকে সিলগালা করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মৌলভীবাজার জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আল আমিনের নেতৃত্বে বড়লেখা পৌরশহরের হাজীগঞ্জ বাজারে এই অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ : জেলার সলঙ্গায় দুটি গুদাম থেকে ৩৭ হাজার লিটার ভোজ্যতেল জব্দ করা হয়েছে। এতে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। সলঙ্গা বাজারের রাজলক্ষ্মী বাণিজ্য ভান্ডার ও দুলাল চন্দ্র কুন্ডু স্টোরে গতকাল দুপুরে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া সিরাজগঞ্জ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. মাহমুদুল হাসান রনি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

শুক্রবার, ১৩ মে ২০২২ , ৩০ বৈশাখ ১৪২৮ ১০ শাওয়াল ১৪৪৩

ভোজ্যতেলের মজুদ, চলছে অভিযান

একদিনে ৪ লাখ ৩৬ হাজার ৬৬৩ লিটার উদ্ধার

image

মাদারীপুর : উদ্ধার হওয়া ভোজ্যতেল ন্যায্যমূল্যে বিক্রি হলে তা কিনতে উপচেপড়া ভিড় -সংবাদ

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে গতকাল একদিনে মোট ৪ লাখ ৩৬ হাজার ৬৬৩ লিটার ভোজ্যতেল উদ্ধার করা হয়েছে। এতে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা উদ্ধার করেছে ২ লাখ ৬ হাজার ৬৬৩ লিটার। এছাড়া খুলনা জেলা প্রশাসন ও র‌্যাব যৌথভাবে দুই লাখ ৩০ হাজার লিটার উদ্ধার করেছে।

ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ অনুযায়ী, ঢাকা মহানগরের কাপ্তান বাজারসহ দেশব্যাপী মোট ৬৪টি বাজার ও বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পরিচালিত তদারকি কার্যক্রমের মাধ্যমে ভোক্তা-স্বার্থবিরোধী বিভিন্ন অপরাধে ১১৪টি প্রতিষ্ঠানকে ১৮ লাখ ২ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয় বলে জানিয়েছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আবদুল জব্বার মন্ডল জানিয়েছেন, কাপ্তান বাজারে অভিযান চালিয়ে সাড়ে ৯ হাজারেরও বেশি লিটার তেল উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘তারা গত পাঁচ দিনে পুরনো দামে কেনা ৯০ ড্রাম তেল বিক্রি করেছেন। গতকাল অভিযান চালিয়ে ৩৯ ড্রাম তেল পাওয়া গেছে। সেগুলো ন্যায্যমূল্যে বিক্রির ব্যবস্থা করা হয়েছে।’ এছাড়া ৩৬টি জেলায় ২ লাখ ৬ হাজার ৬৬৩ লিটার তেল জব্দ করে ন্যায্যদামে বিক্রি করা হয়েছে। এ সময় জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ভোক্তা ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে লিফলেট, প্যাম্ফলেট বিতরণসহ হ্যান্ডমাইকে সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হয়।

ঈদের আগে থেকেই বাজারে ভোজ্যতেলের এ সংকট চলছে। সরকার তেলের দাম বাড়ানোর পর অধিকাংশ বাজারই ভোজ্যতেলশূন্য। অথচ জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও পুলিশের অভিযানে হঠাৎ করেই পুরো বাংলাদেশ যেন সয়াবিন তেলের ‘খনি’তে পরিণত হয়েছে। কখনও সয়াবিন তেলের ‘খনি’র সন্ধান মিলছে ঘরের বাংকারে আবার কখনও গোডাউনের ভেতরে। দেশকে সয়াবিন তেলের খনিতে পরিণত করেছে অতিমুনাফালোভী ব্যবসায়ীরা। আগের কম দামে তেল কিনে নতুন বাড়তি দামে বিক্রি করতে সারাদেশে তারা লুকিয়ে রেখেছিল সয়াবিন তেল। সেগুলোরই এখন সন্ধান মিলছে এক এক করে।

মাদারীপুর : জেলায় বেশি দামে সয়াবিন তেল বিক্রির দায়ে এক ডিলারের ম্যানেজারকে আটক করেছে স্থানীয়রা। পরে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। গতকাল দুপুরে সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়নের তাঁতিবাড়ি বাজারে এই অভিযান চালানো হয়।

খুলনা : নগরের তিন প্রতিষ্ঠানের আটটি গুদাম থেকে দুই লাখ ৩০ হাজার লিটার ভোজ্যতেল জব্দ করা হয়েছে। ওই তিন প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নগরের স্যার ইকবাল রোডের বড়বাজার এলাকার সিটি ব্যাংক গলিতে অবস্থিত সোনালী এন্টারপ্রাইজ, সাহা ট্রেডার্স ও রণজিৎ অ্যান্ড সন্স নামের তিন প্রতিষ্ঠানে গতকাল দুপুরে এ অভিযান চালানো হয়। জেলা প্রশাসন ও র‌্যাব যৌথভাবে এ অভিযান চালায়।

নরসিংদী : গতকাল বিকেলে জেলার সদর উপজেলার পাঁচদোনা ও মাধবদী বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে জরিমানা আদায় করা হয়। এ সময় অবৈভাবে মজুদকৃত ১১৮ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করে। অবৈধ মজুদের অপরাধে একতা স্টরের স্বত্বাধিকারী মোস্তাফিজুর রহমানকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড দেয়া হয়।

চট্টগ্রাম : তেল বিক্রিতে অনিয়মের অভিযোগে ছোটপোল এলাকার একটি দোকানকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। ওই দোকানটি এক পুলিশ কর্মকর্তার ছেলের। জরিমানার পাশাপাশি দোকানের গোডাউনে থাকা এক হাজার ১৫ লিটার ভোজ্যতেল ন্যায্যমূল্যে সাধারণ মানুষের কাছে বিক্রি করা হয়েছে। গতকাল বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত অধিদপ্তর এ অভিযান পরিচালনা করে।

ঝিনাইদহ : জেলার কালীগঞ্জ শহরের বিহারীমোড় এলাকার আরএস অয়েল মিলের গুদামে অভিযান চালিয়ে ৪২ হাজার ২৪ লিটার সয়াবিন তেল উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বিকেলে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর পরিচালিত এ অভিযানে গুদাম মালিককে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বরিশাল : তেলের বোতল থেকে সর্বোচ্চ খুচরা বিক্রয় মূল্য মুছে ফেলায় ২ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল বিকেলে বাবুগঞ্জ উপজেলার রহমতপুর ও গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে এই জরিমানা আদায় করা হয়।

অভিযান পরিচালনা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. শাহ শোয়াইব মিয়া।

মৌলভীবাজার : জেলার বড়লেখায় একজন তেলের ডিলারসহ ৪ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ৫৬ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। পাশাপাশি তেলের ডিলারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটিকে সিলগালা করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মৌলভীবাজার জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আল আমিনের নেতৃত্বে বড়লেখা পৌরশহরের হাজীগঞ্জ বাজারে এই অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ : জেলার সলঙ্গায় দুটি গুদাম থেকে ৩৭ হাজার লিটার ভোজ্যতেল জব্দ করা হয়েছে। এতে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। সলঙ্গা বাজারের রাজলক্ষ্মী বাণিজ্য ভান্ডার ও দুলাল চন্দ্র কুন্ডু স্টোরে গতকাল দুপুরে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া সিরাজগঞ্জ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. মাহমুদুল হাসান রনি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।