নিম্নচাপে পরিণত ‘আসানি’

নামলো সতর্ক সংকেত, বাড়বে তাপমাত্রা

ভারতের অন্ধ্র উপকূলে থাকা ঘূর্ণিঝড় ‘আসানি’ আরও দুর্বল নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এর প্রভাব কেটে যাওয়ায় বাংলাদেশের সমুদ্রবন্দরগুলোর ওপর থাকা সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলা হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা ৬ টায় ‘আসানি’ অন্ধ্র উপকূলীয় এলাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় অবস্থান করছিল। গতকাল আবহাওয়া অধিদপ্তর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, ভারতের অন্ধ্র উপকূল এবং তৎসংলগ্ন স্থলভাগ ও পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি পশ্চিম দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে গভীর নিম্নচাপ এবং পরবর্তীতে ক্রমাগতভাবে নিম্নচাপ, সুস্পষ্ট লঘুচাপ ও লঘুচাপে পরিণত হয়ে গতকাল সন্ধ্যা ৬টায় অন্ধ্র প্রদেশের উপকূলীয় এলাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় অবস্থান করছে। এটি ক্রমান্বয়ে দুর্বল ও গুরুত্বহীন হয়ে পড়বে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে গতকাল বিকেল পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছিল।

এদিকে, গতকাল সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা ও ঝড়ো হাওয়াসহ বিজলিসহ হালকা ও মাঝারি ধরনের বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি বর্ষণ হতে পারে। তবে, সারাদেশের দিন এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সর্বনিম্ন তামাত্রা ছিল সিলেটে ২৩.৩। আর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজশাহীতে ৩৫.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ সময় কক্সবাজারে সর্বোচ্চ ৬৮ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টার আবহওয়ার অবস্থা সম্পর্কে পূর্বাভাসে বলা হয়, বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের প্রবণতা হ্রাস পাবে।

শুক্রবার, ১৩ মে ২০২২ , ৩০ বৈশাখ ১৪২৮ ১০ শাওয়াল ১৪৪৩

নিম্নচাপে পরিণত ‘আসানি’

নামলো সতর্ক সংকেত, বাড়বে তাপমাত্রা

ভারতের অন্ধ্র উপকূলে থাকা ঘূর্ণিঝড় ‘আসানি’ আরও দুর্বল নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এর প্রভাব কেটে যাওয়ায় বাংলাদেশের সমুদ্রবন্দরগুলোর ওপর থাকা সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলা হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা ৬ টায় ‘আসানি’ অন্ধ্র উপকূলীয় এলাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় অবস্থান করছিল। গতকাল আবহাওয়া অধিদপ্তর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, ভারতের অন্ধ্র উপকূল এবং তৎসংলগ্ন স্থলভাগ ও পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি পশ্চিম দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে গভীর নিম্নচাপ এবং পরবর্তীতে ক্রমাগতভাবে নিম্নচাপ, সুস্পষ্ট লঘুচাপ ও লঘুচাপে পরিণত হয়ে গতকাল সন্ধ্যা ৬টায় অন্ধ্র প্রদেশের উপকূলীয় এলাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় অবস্থান করছে। এটি ক্রমান্বয়ে দুর্বল ও গুরুত্বহীন হয়ে পড়বে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে গতকাল বিকেল পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছিল।

এদিকে, গতকাল সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা ও ঝড়ো হাওয়াসহ বিজলিসহ হালকা ও মাঝারি ধরনের বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি বর্ষণ হতে পারে। তবে, সারাদেশের দিন এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সর্বনিম্ন তামাত্রা ছিল সিলেটে ২৩.৩। আর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজশাহীতে ৩৫.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ সময় কক্সবাজারে সর্বোচ্চ ৬৮ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টার আবহওয়ার অবস্থা সম্পর্কে পূর্বাভাসে বলা হয়, বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের প্রবণতা হ্রাস পাবে।