বড় পতন শেয়ারবাজারে, সূচক নামলো ৬ হাজার পয়েন্টের ঘরে

ঈদের পর শেয়ারবাজারে লেনদেন হওয়া ৮ দিনই পতন হয়েছে। এই টানা পতনে শেয়ারবাজার এক বছরের বেশি সময় আগের অবস্থানে নেমে গেছে। আর টানা পতনে বড় ক্ষতির মুখে পড়েছেন বিনিয়োগকারীরা। গতকাল সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে শেয়ারবাজারে সব সূচকেরই পতন হয়েছে। সূচকের সঙ্গে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর এবং টাকার পরিমাণে লেনদেনও কমেছে।

গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৭৪.০৭ পয়েন্ট বা ১.২০ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৫২.৪৪ পয়েন্টে। সূচকটি কমে এক বছর ২৫ দিন বা ২৫৫ কার্যদিবস আগের অবস্থানে নেমে গেছে। এর আগে ২০২১ সালের ২৯ জুন গতকালকে থেকে কম অর্থাৎ ৬০৪২ পয়েন্টে অবস্থান করছিল। ডিএসইর অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১৬.৭২ পয়েন্ট বা ১.২৪ শতাংশ এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৩২.৬৭ পয়েন্ট বা ১.৪৮ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ৩২৮.৩৬ পয়েন্টে এবং দুই হাজার ১৬৮.১৫ পয়েন্টে।

ডিএসইতে গতকাল টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ৪৭০ কোটি ৯৭ লাখ টাকার। যা আগের কার্যদিবস হতে ২০৫ কোটি ৯৬ টাকা কম। আগের কার্য দিবসে লেনদেন হয়েছিল ৬৭৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। ডিএসইতে গতকাল ৩৮২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪২টির বা ১০.৯৯ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। দর কমেছে ৩১৮টির বা ৮৩.২৫ শতাংশের এবং ২২টির বা ৫.৭৬ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অন্য শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ১৬০.৮৯ পয়েন্ট বা ০.৮৯ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার ৮০৭.৪৮ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৬৯টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৪৪টির কমেছে ২০৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৮টির দর। গতকাল সিএসইতে ১৫ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

গতকাল ডিএসইর ব্লক মার্কেটে ৪২টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ৫৬ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর ৭৮ লাখ ০৯ হাজার ২১১টি শেয়ার ৭৪ বার হাত বদলের মাধ্যমে ৫৬ কোটি ৫৮ লাখ ৩৪ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ২৯ কোটি ০৯ লাখ ৬৪ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১১ কোটি ১২ লাখ ৮৪ হাজার টাকার বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ৩ কোটি ৬০ লাখ ৫১ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে ট্রাস্ট ব্যাংকের।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ৩১৮টির বা ৮৩.২৫ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিটের দর কমেছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে লিবরা ইনফিউশনের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের অনাগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, আগের কার্যদিবসে লিবরা ইনফিউশনের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ৯৫৭.৯০ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে এর শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়ায় ৯৫০.৫০ টাকায়। অর্থাৎ গতকাল কোম্পানিটির শেয়ার দর ৭.৪০ টাকা বা ৫.১৮ শতাংশ কমেছে। এর মাধ্যমে লিবরা ইনফিউশন ডিএসইর টপটেন লুজার তালিকার শীর্ষে উঠে আসে।

এদিন ডিএসইতে টপটেন লুজার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে এবি ব্যাংকের ২ শতাংশ, প্রভাতি ইন্স্যুরেন্সের ২ শতাংশ, রিং শাইন টেক্সটাইলের ২ শতাংশ, শমরিতা হসপিটালের ২ শতাংশ, বঙ্গজের ১.৯৯ শতাংশ, কনফিডেন্স সিমেন্টের ১.৯৯ শতাশ, তমিজউদ্দিন টেক্সটাইলের ১.৯৯ শতাংশ, ফরচুন সুজের ১.৯৯ শতাংশ এবং প্রাইম লাইফের ১.৯৯ শতাংশ কমেছে।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ৪২টির বা ১০.৯৯ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। এদিন কোম্পানিগুলোর মধ্যে ফাস ফাইনান্সের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি।

আগের কার্যদিবস লেনদেন শেষে ফাস ফাইনান্সের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ৫.১০ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে এর শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়ায় ৫.৬০ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দর ০.৫০ টাকা বা ৯.৮০ শতাংশ বেড়েছে। এর মাধ্যমে ফাস ফাইনান্সের ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে আসে। ডিএসইতে টপটেন গেইনার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের ৯.৮০ শতাংশ, সাফকো স্পিনিয়ের ৭.৪২ শতাংশ, ইউনিয়ন ক্যাপিটালের ৭.১৪ শতাংশ, মেট্রো স্পিনিয়ের ৬.৪১ শতাংশ, প্রোগ্রেস লাইফের ৬.৩৮ শতাংশ, প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৫.৩৩ শতাংশ, প্রিমিয়ার লিজিংয়ের ৪.৪৭ শতাংশ, সোনারগাঁও টেক্সটাইলের ৩.৫১ শতাংশ এবং তশরিফার শেয়ার দর ৩.০৩ শতাংশ বেড়েছে।

সোমবার, ২৫ জুলাই ২০২২ , ১০ শ্রাবণ ১৪২৯ ২৬ জিলহজ ১৪৪৩

বড় পতন শেয়ারবাজারে, সূচক নামলো ৬ হাজার পয়েন্টের ঘরে

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

ঈদের পর শেয়ারবাজারে লেনদেন হওয়া ৮ দিনই পতন হয়েছে। এই টানা পতনে শেয়ারবাজার এক বছরের বেশি সময় আগের অবস্থানে নেমে গেছে। আর টানা পতনে বড় ক্ষতির মুখে পড়েছেন বিনিয়োগকারীরা। গতকাল সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে শেয়ারবাজারে সব সূচকেরই পতন হয়েছে। সূচকের সঙ্গে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর এবং টাকার পরিমাণে লেনদেনও কমেছে।

গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৭৪.০৭ পয়েন্ট বা ১.২০ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৫২.৪৪ পয়েন্টে। সূচকটি কমে এক বছর ২৫ দিন বা ২৫৫ কার্যদিবস আগের অবস্থানে নেমে গেছে। এর আগে ২০২১ সালের ২৯ জুন গতকালকে থেকে কম অর্থাৎ ৬০৪২ পয়েন্টে অবস্থান করছিল। ডিএসইর অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১৬.৭২ পয়েন্ট বা ১.২৪ শতাংশ এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৩২.৬৭ পয়েন্ট বা ১.৪৮ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ৩২৮.৩৬ পয়েন্টে এবং দুই হাজার ১৬৮.১৫ পয়েন্টে।

ডিএসইতে গতকাল টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ৪৭০ কোটি ৯৭ লাখ টাকার। যা আগের কার্যদিবস হতে ২০৫ কোটি ৯৬ টাকা কম। আগের কার্য দিবসে লেনদেন হয়েছিল ৬৭৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। ডিএসইতে গতকাল ৩৮২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪২টির বা ১০.৯৯ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। দর কমেছে ৩১৮টির বা ৮৩.২৫ শতাংশের এবং ২২টির বা ৫.৭৬ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অন্য শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ১৬০.৮৯ পয়েন্ট বা ০.৮৯ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার ৮০৭.৪৮ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৬৯টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৪৪টির কমেছে ২০৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৮টির দর। গতকাল সিএসইতে ১৫ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

গতকাল ডিএসইর ব্লক মার্কেটে ৪২টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ৫৬ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর ৭৮ লাখ ০৯ হাজার ২১১টি শেয়ার ৭৪ বার হাত বদলের মাধ্যমে ৫৬ কোটি ৫৮ লাখ ৩৪ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ২৯ কোটি ০৯ লাখ ৬৪ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১১ কোটি ১২ লাখ ৮৪ হাজার টাকার বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ৩ কোটি ৬০ লাখ ৫১ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে ট্রাস্ট ব্যাংকের।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ৩১৮টির বা ৮৩.২৫ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিটের দর কমেছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে লিবরা ইনফিউশনের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের অনাগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, আগের কার্যদিবসে লিবরা ইনফিউশনের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ৯৫৭.৯০ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে এর শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়ায় ৯৫০.৫০ টাকায়। অর্থাৎ গতকাল কোম্পানিটির শেয়ার দর ৭.৪০ টাকা বা ৫.১৮ শতাংশ কমেছে। এর মাধ্যমে লিবরা ইনফিউশন ডিএসইর টপটেন লুজার তালিকার শীর্ষে উঠে আসে।

এদিন ডিএসইতে টপটেন লুজার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে এবি ব্যাংকের ২ শতাংশ, প্রভাতি ইন্স্যুরেন্সের ২ শতাংশ, রিং শাইন টেক্সটাইলের ২ শতাংশ, শমরিতা হসপিটালের ২ শতাংশ, বঙ্গজের ১.৯৯ শতাংশ, কনফিডেন্স সিমেন্টের ১.৯৯ শতাশ, তমিজউদ্দিন টেক্সটাইলের ১.৯৯ শতাংশ, ফরচুন সুজের ১.৯৯ শতাংশ এবং প্রাইম লাইফের ১.৯৯ শতাংশ কমেছে।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ৪২টির বা ১০.৯৯ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। এদিন কোম্পানিগুলোর মধ্যে ফাস ফাইনান্সের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ ছিল সবচেয়ে বেশি।

আগের কার্যদিবস লেনদেন শেষে ফাস ফাইনান্সের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ৫.১০ টাকায়। গতকাল লেনদেন শেষে এর শেয়ারের ক্লোজিং দর দাঁড়ায় ৫.৬০ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দর ০.৫০ টাকা বা ৯.৮০ শতাংশ বেড়েছে। এর মাধ্যমে ফাস ফাইনান্সের ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে আসে। ডিএসইতে টপটেন গেইনার তালিকায় উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের ৯.৮০ শতাংশ, সাফকো স্পিনিয়ের ৭.৪২ শতাংশ, ইউনিয়ন ক্যাপিটালের ৭.১৪ শতাংশ, মেট্রো স্পিনিয়ের ৬.৪১ শতাংশ, প্রোগ্রেস লাইফের ৬.৩৮ শতাংশ, প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৫.৩৩ শতাংশ, প্রিমিয়ার লিজিংয়ের ৪.৪৭ শতাংশ, সোনারগাঁও টেক্সটাইলের ৩.৫১ শতাংশ এবং তশরিফার শেয়ার দর ৩.০৩ শতাংশ বেড়েছে।