ডলারের দাম সামান্য কমলো

একদিনের ব্যবধানে ডলারের দাম সামান্য কমেছে। গত মঙ্গলবার যে ডলার ১০ টাকা থেকে ১১২ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। সেটি গতকাল খোলাবাজারে ১০৭ থেকে ১০৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে। অর্থাৎ একদিনের ব্যবধানে ডলারের দাম কমেছে ৪ থেকে ৫ টাকা। তবে খোলাবাজারে দাম কমার কারণে ব্যাংকের দামের সঙ্গে সমান হয়ে গেছে। ব্যাংকেও ডলার প্রায় ১০৭ থেকে ১০৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

গতকাল বেসরকারি ইষ্টার্ন ব্যাংক এক দিনের ব্যবধানে ৭ টাকা বাড়িয়ে গতকাল প্রতি ডলার ১০৮ টাকায় বিক্রি করেছে। গত মঙ্গলবার এই ব্যাংকে ডলারের দাম ছিল ১০১ টাকা। আইএফআইসি ও সিটি ব্যাংক থেকে এক ডলার কিনতে গতকাল গুনতে হয়েছে ১০৭ টাকা। রাষ্ট্রায়ত্ত রূপালী ব্যাংক ১০৩ টাকা দরে নগদ ডলার বিক্রি করেছে। অন্য তিন সরকারি ব্যাংক সোনালী, জনতা ও অগ্রণী ব্যাংক বিক্রি করেছে ১০২ টাকায়।

এদিকে খোলাবাজারে ডলারের দাম কিছুটা কমেছে। গতকাল প্রতি ডলার বিক্রি হয়েছে ১০৮ টাকায়। গত মঙ্গলবার এক লাফে দাম ৬ টাকা বেড়ে ১১২ টাকায় উঠে গিয়েছিল।

তবে গতকাল বাংলাদেশ ব্যাংকের বেঁধে দেয়া আন্তব্যাংক দর (ব্যাংক রেট) ছিল ৯৪ টাকা ৭০ পয়সা। এই দামে ব্যাংকগুলোর কাছে ডলার বিক্রি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। তবে ব্যাংকগুলো এই দরের চেয়ে ৮ থেকে ১৩ টাকা বেশি দামে ডলার বিক্রি করেছে। খোলাবাজারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণ নেই, কিন্তু ব্যাংকগুলো বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণ বা তদারকির মধ্যে থেকে ডলার লেনদেন করে থাকে।

বাজার ‘স্থিতিশীল’ করতে গত অর্থবছরের ধারাবাহিকতায় নতুন অর্থবছরেও বিদেশি মুদ্রার সঞ্চয়ন বা রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রি অব্যাহত রেখেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গত মঙ্গলবারও ৫ কোটি ডলার বিক্রি করা হয়েছে।

সব মিলিয়ে ১ জুলাই থেকে শুরু হওয়া ২০২২-২৩ অর্থবছরের ২৬ দিনে (১ থেকে ২৬ জুলাই) প্রায় ১০০ কোটি (এক বিলিয়ন) ডলার বিক্রি করেছে। তারপরও বাজার স্বাভাবিক হচ্ছে না।

বৃহস্পতিবার, ২৮ জুলাই ২০২২ , ১৩ শ্রাবণ ১৪২৯ ২৯ জিলহজ ১৪৪৩

ডলারের দাম সামান্য কমলো

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

একদিনের ব্যবধানে ডলারের দাম সামান্য কমেছে। গত মঙ্গলবার যে ডলার ১০ টাকা থেকে ১১২ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। সেটি গতকাল খোলাবাজারে ১০৭ থেকে ১০৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে। অর্থাৎ একদিনের ব্যবধানে ডলারের দাম কমেছে ৪ থেকে ৫ টাকা। তবে খোলাবাজারে দাম কমার কারণে ব্যাংকের দামের সঙ্গে সমান হয়ে গেছে। ব্যাংকেও ডলার প্রায় ১০৭ থেকে ১০৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

গতকাল বেসরকারি ইষ্টার্ন ব্যাংক এক দিনের ব্যবধানে ৭ টাকা বাড়িয়ে গতকাল প্রতি ডলার ১০৮ টাকায় বিক্রি করেছে। গত মঙ্গলবার এই ব্যাংকে ডলারের দাম ছিল ১০১ টাকা। আইএফআইসি ও সিটি ব্যাংক থেকে এক ডলার কিনতে গতকাল গুনতে হয়েছে ১০৭ টাকা। রাষ্ট্রায়ত্ত রূপালী ব্যাংক ১০৩ টাকা দরে নগদ ডলার বিক্রি করেছে। অন্য তিন সরকারি ব্যাংক সোনালী, জনতা ও অগ্রণী ব্যাংক বিক্রি করেছে ১০২ টাকায়।

এদিকে খোলাবাজারে ডলারের দাম কিছুটা কমেছে। গতকাল প্রতি ডলার বিক্রি হয়েছে ১০৮ টাকায়। গত মঙ্গলবার এক লাফে দাম ৬ টাকা বেড়ে ১১২ টাকায় উঠে গিয়েছিল।

তবে গতকাল বাংলাদেশ ব্যাংকের বেঁধে দেয়া আন্তব্যাংক দর (ব্যাংক রেট) ছিল ৯৪ টাকা ৭০ পয়সা। এই দামে ব্যাংকগুলোর কাছে ডলার বিক্রি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। তবে ব্যাংকগুলো এই দরের চেয়ে ৮ থেকে ১৩ টাকা বেশি দামে ডলার বিক্রি করেছে। খোলাবাজারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণ নেই, কিন্তু ব্যাংকগুলো বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণ বা তদারকির মধ্যে থেকে ডলার লেনদেন করে থাকে।

বাজার ‘স্থিতিশীল’ করতে গত অর্থবছরের ধারাবাহিকতায় নতুন অর্থবছরেও বিদেশি মুদ্রার সঞ্চয়ন বা রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রি অব্যাহত রেখেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গত মঙ্গলবারও ৫ কোটি ডলার বিক্রি করা হয়েছে।

সব মিলিয়ে ১ জুলাই থেকে শুরু হওয়া ২০২২-২৩ অর্থবছরের ২৬ দিনে (১ থেকে ২৬ জুলাই) প্রায় ১০০ কোটি (এক বিলিয়ন) ডলার বিক্রি করেছে। তারপরও বাজার স্বাভাবিক হচ্ছে না।