স্টেশনে স্টেশনে আজ থেকে বঙ্গবন্ধু ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর প্রদর্শনী

দেশের বিভিন্ন রেলস্টেশনে আজ থেকে প্রদর্শিত হবে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর’। ১ আগস্ট থেকে আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন স্টেশনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন সংগ্রাম ও স্বাধীনতা যুদ্ধের সঠিক ইতিহাস নিয়ে ঘুরে বেড়াবে রেলওয়ের ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর।

রেলওয়ের একটি ব্রডগেজ ও একটি মিটারগেজ কোচে প্রযুক্তি ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে ভ্রাম্যমাণ জাদুঘরটি। এতে ১৯২০ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত জাতির পিতার ঐতিহাসিক জীবন, মুক্তিযুদ্ধ, সংগ্রামী ঘটনা প্রবাহ তুলে ধরা হয়েছে। দর্শনার্থীরা টাচ স্ক্রিনে আঙুল স্পর্শ করতেই বঙ্গবন্ধু ছবি, ভাষণ, তার জীবনের নানা দিক-নির্দেশনা ভেসে উঠবে বলে রেলওয়ে সূত্র জানায়।

জানা গেছে, দেশের ৮০ শতাংশ রেলওয়ে স্টেশন গ্রাম-বাংলায় ছড়িয়ে রয়েছে। প্রান্তিক মানুষের কাছে জাতির পিতার ঐতিহাসিক জীবন, মুক্তিযুদ্ধ, সংগ্রামী জীবনী তুলে ধরতে এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ব্রডগেজ কোচের জাদুঘরটি পশ্চিমাঞ্চল এবং মিটারগেজের জাদুঘরটি পূর্বাঞ্চলে প্রদর্শিত হবে। শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষের জন্য জাদুঘরটি উন্মুক্ত থাকবে বলে রেলওয়ে কর্মকর্তারা জানান।

এ বিষয়ে রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (আরএস) মঞ্জুর-উল-আলম চৌধুরী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর’ রেলের ইতিহাসে প্রথম ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর। ব্রডগেজ ও একটি মিটারগেজ কোচে প্রযুক্তি ব্যবহার করে প্রায় বছর সময় নিয়ে জাদুঘরটি তৈরি করা হয়েছে।’

শিডিউল অনুযায়ী দেখা যায়, রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে একটি জাদুঘর থাকবে ১ থেকে ৫ আগস্ট, ভাটিয়ারী স্টেশনে থাকবে ৫ থেকে ৭ আগস্ট, সীতাকুণ্ড স্টেশনে থাকবে ৭ থেকে ৯ আগস্ট, চিনকিআস্তানা স্টেশনে থাকবে ৯ থেকে ১১ আগস্ট, ফেনী জংশনে থাকবে ১১ থেকে ১৫ আগস্ট, গুনবতী স্টেশনে থাকবে ১৪ থেকে ১৭ আগস্ট, নাঙ্গলকোর্ট স্টেশনে থাকবে ১৬ থেকে ১৯ আগস্ট, লাকসাম জংশনে থাকবে ১৮ থেকে ২৩ আগস্ট, চৌমুহনী স্টেশনে থাকবে ২৪ থেকে ২৫ আগস্ট, মাইজদীকোর্ট স্টেশনে থাকবে ২৬ থেকে ২৭ আগস্ট, নোয়াখালী স্টেশনে থাকবে ২৮ থেকে ২৯ আগস্ট, চাঁদপুর স্টেশনে থাকবে ৩০ আগস্ট থেকে ১ সেপ্টেম্বর, কুমিল্লা স্টেশনে থাকবে ২ থেকে ৪ নভেম্বর, আখাউড়া স্টেশনে থাকবে ৫ থেকে ৮ নভেম্বর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া স্টেশনে থাকবে ৯ থেকে ১০ নভেম্বর, ভৈরব স্টেশনে থাকবে ১১ থেকে ১২ নভেম্বর, নরসিংদী স্টেশনে থাকবে ১৩ থেকে ১৪ নভেম্বর, টঙ্গী জংশনে থাকবে ১৫ থেকে ১৬ নভেম্বর এবং ক্যান্টনমেন্ট স্টেশনে থাকবে ১৭ থেকে ১৮ নভেম্বর পর্যন্ত।

অন্যদিকে আরেকটি কোচ পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের গোপালগঞ্জ স্টেশনে থাকবে ১ থেকে ৫ আগস্ট, কাসিয়ানি স্টেশনে থাকবে ৬ থেকে ৭ আগস্ট, ভাটিয়াপাড়া ঘাট স্টেশনে থাকবে ৯ থেকে ১০ আগস্ট, মধুখালী জংশনে ১২ থেকে ১৩ আগস্ট, রাজবাড়ী স্টেশনে ১৫ থেকে ১৭ আগস্ট, ফরিদপুর স্টেশনে ১৯ থেকে ২০ আগস্ট, পাংশা স্টেশনে থাকবে ২২ থেকে ২৩ আগস্ট, কুমারখালী স্টেশনে থাকবে ২৫ থেকে ২৬ আগস্ট, কালুখালী জংশনে ২৮ থেকে ২৯ আগস্ট, কুষ্টিয়া স্টেশনে থাকবে ৩০ থেকে ৩১ আগস্ট, খুলনা স্টেশনে থাকবে ২ থেকে ৭ নভেম্বর, দৌলতপুর স্টেশনে থাকবে ৯ থেকে ১০ নভেম্বর, নোয়াপাড়া স্টেশনে থাকবে ১২ থেকে ১৩ নভেম্বর, যশোর স্টেশনে ১৫ থেকে ১৮ নভেম্বর, বেনাপোল স্টেশনে ২০ থেকে ২১ নভেম্বর, নাভারণ স্টেশনে ২২ থেকে ২৩ নভেম্বর, মোবারকগঞ্জ স্টেশনে ২৫ থেকে ২৬ নভেম্বর, দর্শনা স্টেশনে থাকবে ২৮ থেকে ২৯ নভেম্বর এবং চুয়াডাঙ্গা স্টেশনে থাকবে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত।

সোমবার, ০১ আগস্ট ২০২২ , ১৭ শ্রাবণ ১৪২৯ ২ মহররম ১৪৪৪

স্টেশনে স্টেশনে আজ থেকে বঙ্গবন্ধু ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর প্রদর্শনী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

দেশের বিভিন্ন রেলস্টেশনে আজ থেকে প্রদর্শিত হবে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর’। ১ আগস্ট থেকে আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন স্টেশনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন সংগ্রাম ও স্বাধীনতা যুদ্ধের সঠিক ইতিহাস নিয়ে ঘুরে বেড়াবে রেলওয়ের ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর।

রেলওয়ের একটি ব্রডগেজ ও একটি মিটারগেজ কোচে প্রযুক্তি ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে ভ্রাম্যমাণ জাদুঘরটি। এতে ১৯২০ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত জাতির পিতার ঐতিহাসিক জীবন, মুক্তিযুদ্ধ, সংগ্রামী ঘটনা প্রবাহ তুলে ধরা হয়েছে। দর্শনার্থীরা টাচ স্ক্রিনে আঙুল স্পর্শ করতেই বঙ্গবন্ধু ছবি, ভাষণ, তার জীবনের নানা দিক-নির্দেশনা ভেসে উঠবে বলে রেলওয়ে সূত্র জানায়।

জানা গেছে, দেশের ৮০ শতাংশ রেলওয়ে স্টেশন গ্রাম-বাংলায় ছড়িয়ে রয়েছে। প্রান্তিক মানুষের কাছে জাতির পিতার ঐতিহাসিক জীবন, মুক্তিযুদ্ধ, সংগ্রামী জীবনী তুলে ধরতে এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ব্রডগেজ কোচের জাদুঘরটি পশ্চিমাঞ্চল এবং মিটারগেজের জাদুঘরটি পূর্বাঞ্চলে প্রদর্শিত হবে। শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষের জন্য জাদুঘরটি উন্মুক্ত থাকবে বলে রেলওয়ে কর্মকর্তারা জানান।

এ বিষয়ে রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (আরএস) মঞ্জুর-উল-আলম চৌধুরী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর’ রেলের ইতিহাসে প্রথম ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর। ব্রডগেজ ও একটি মিটারগেজ কোচে প্রযুক্তি ব্যবহার করে প্রায় বছর সময় নিয়ে জাদুঘরটি তৈরি করা হয়েছে।’

শিডিউল অনুযায়ী দেখা যায়, রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে একটি জাদুঘর থাকবে ১ থেকে ৫ আগস্ট, ভাটিয়ারী স্টেশনে থাকবে ৫ থেকে ৭ আগস্ট, সীতাকুণ্ড স্টেশনে থাকবে ৭ থেকে ৯ আগস্ট, চিনকিআস্তানা স্টেশনে থাকবে ৯ থেকে ১১ আগস্ট, ফেনী জংশনে থাকবে ১১ থেকে ১৫ আগস্ট, গুনবতী স্টেশনে থাকবে ১৪ থেকে ১৭ আগস্ট, নাঙ্গলকোর্ট স্টেশনে থাকবে ১৬ থেকে ১৯ আগস্ট, লাকসাম জংশনে থাকবে ১৮ থেকে ২৩ আগস্ট, চৌমুহনী স্টেশনে থাকবে ২৪ থেকে ২৫ আগস্ট, মাইজদীকোর্ট স্টেশনে থাকবে ২৬ থেকে ২৭ আগস্ট, নোয়াখালী স্টেশনে থাকবে ২৮ থেকে ২৯ আগস্ট, চাঁদপুর স্টেশনে থাকবে ৩০ আগস্ট থেকে ১ সেপ্টেম্বর, কুমিল্লা স্টেশনে থাকবে ২ থেকে ৪ নভেম্বর, আখাউড়া স্টেশনে থাকবে ৫ থেকে ৮ নভেম্বর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া স্টেশনে থাকবে ৯ থেকে ১০ নভেম্বর, ভৈরব স্টেশনে থাকবে ১১ থেকে ১২ নভেম্বর, নরসিংদী স্টেশনে থাকবে ১৩ থেকে ১৪ নভেম্বর, টঙ্গী জংশনে থাকবে ১৫ থেকে ১৬ নভেম্বর এবং ক্যান্টনমেন্ট স্টেশনে থাকবে ১৭ থেকে ১৮ নভেম্বর পর্যন্ত।

অন্যদিকে আরেকটি কোচ পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের গোপালগঞ্জ স্টেশনে থাকবে ১ থেকে ৫ আগস্ট, কাসিয়ানি স্টেশনে থাকবে ৬ থেকে ৭ আগস্ট, ভাটিয়াপাড়া ঘাট স্টেশনে থাকবে ৯ থেকে ১০ আগস্ট, মধুখালী জংশনে ১২ থেকে ১৩ আগস্ট, রাজবাড়ী স্টেশনে ১৫ থেকে ১৭ আগস্ট, ফরিদপুর স্টেশনে ১৯ থেকে ২০ আগস্ট, পাংশা স্টেশনে থাকবে ২২ থেকে ২৩ আগস্ট, কুমারখালী স্টেশনে থাকবে ২৫ থেকে ২৬ আগস্ট, কালুখালী জংশনে ২৮ থেকে ২৯ আগস্ট, কুষ্টিয়া স্টেশনে থাকবে ৩০ থেকে ৩১ আগস্ট, খুলনা স্টেশনে থাকবে ২ থেকে ৭ নভেম্বর, দৌলতপুর স্টেশনে থাকবে ৯ থেকে ১০ নভেম্বর, নোয়াপাড়া স্টেশনে থাকবে ১২ থেকে ১৩ নভেম্বর, যশোর স্টেশনে ১৫ থেকে ১৮ নভেম্বর, বেনাপোল স্টেশনে ২০ থেকে ২১ নভেম্বর, নাভারণ স্টেশনে ২২ থেকে ২৩ নভেম্বর, মোবারকগঞ্জ স্টেশনে ২৫ থেকে ২৬ নভেম্বর, দর্শনা স্টেশনে থাকবে ২৮ থেকে ২৯ নভেম্বর এবং চুয়াডাঙ্গা স্টেশনে থাকবে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত।