বিদেশ ভ্রমণ বন্ধ, তারপরও ৪৫ জন শিক্ষক-কর্মকর্তাকে পাঠানো হচ্ছে

শিক্ষা ব্যবস্থাপনার ওপর প্রশিক্ষণ নিতে ৪৫ জন শিক্ষক-কর্মকর্তা থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনাম সফরে যাচ্ছেন। এসব কর্মকর্তার আগামী ২১ থেকে ২৫ আগস্ট দুই দেশ সফর করার কথা রয়েছে। এই বিদেশ সফরের আয়োজন করেছে জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি (নায়েম)। সংস্থাটির ‘২৫তম সিনিয়র স্টাফ কোর্স অন এডুকেশন অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট’ (এসএসসিইএম) প্রশিক্ষণ কোর্সের প্রশিক্ষণার্থীরা ও কোর্স সমন্বয় কমিটির সদস্যদের জন্য এই সফরের আয়োজন করা হয়েছে। এই সফরের ব্যয় নায়েম ও প্রশিক্ষণার্থীরা যৌথভাবে বহন করবেন।

প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের কোর্স নির্দেশিকা অনুসারে প্রশিক্ষণার্থীরা বিভিন্ন দেশের শিক্ষা প্রশাসন ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে অভিজ্ঞতা লাভের উদ্দেশে কর্মকর্তারা ভিয়েতনাম ও থাইল্যান্ডে যেতে আগ্রহী বলে নায়েম জানিয়েছে। এতে কোর্সে অংশগ্রহণকারী ৪০ জন প্রশিক্ষণার্থী কর্মকর্তা ও কোর্স সমন্বয়কারী পাঁচজন সদস্যসহ মোট ৪৫ জন এ সফরে অংশগ্রহণ করবেন।

জানতে চাইলে নায়েম মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. নিজামুল করিম সংবাদকে বলেন, ‘আমরা জনপ্রতি ১৫ হাজার টাকা করে দিচ্ছি। বাকি টাকা তারা (প্রশিক্ষণার্থী) নিজেরা বহন করবেন। এভাবে আমরা মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব দিয়েছি।’ দেশে ডলার সংকট ও সরকারের ব্যয় সঙ্কোচন নীতির আলোকে সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। এই অবস্থায় কর্মকর্তাদের বিদেশ সফরে পাঠানো ঠিক হচ্ছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের এটা নিয়মিত প্রশিক্ষণের অংশ। এখানে কোন বাধা নেই।’

জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা সংবাদকে বলেন, ‘সরকারি কর্মকর্তাদের নিয়মিত-অনিয়মিতসহ সব ধরনের বিদেশ সফরই নিয়ন্ত্রণের নির্দেশনা রয়েছে। এর ফাঁকফোকর দিয়ে কিছু করার সুযোগ নেই।’

সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক পরিপত্রে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ পরবর্তী অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার এবং বর্তমানে বৈশ্বিক সংকটের প্রেক্ষাপটে পুনরাদেশ না দেয়া পর্যন্ত সরকারি কর্মকর্তাদের সব ধরনের ভ্রমণ, সেমিনার, ওয়ার্কশপ উপলক্ষে বিদেশযাত্রা বন্ধ থাকবে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীরও নির্দেশনা রয়েছে।

ভিয়েতনাম ও থাইল্যান্ড সফরের বিষয়ে নায়েম মহাপরিচালক অধ্যাপক নিজামুল করিম স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বলা হয়েছে, এ সফরটি দেশ সম্পন্ন করার ক্ষেত্রে পূর্ববর্তী ‘এসএসসিইএম এবং এসিইএম’ কোর্সসমূহে জনপ্রতি ১৫ হাজার টাকা করে নায়েমের প্রশিক্ষণ বাজেট হতে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।’ এছাড়া বৈদেশিক শিক্ষাসফরের ক্ষেত্রে অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী স্থানীয় পর্যায়ের সফরের জন্য যে ব্যয় সংস্থান রয়েছে এর মধ্য থেকে এ ব্যয়ের সংকুলান করার নির্দেশনা রয়েছে উল্লেখ করে নিজামুল করিম বলেন, ‘সে মোতাবেক ২৫তম এসএসসিইএম’র শিক্ষা সফর খাতে ৪০ জন প্রশিক্ষণার্থী কর্মকর্তা ও কোর্স সমন্বয় কমিটির (তিনজন) সদস্যসহ ৪৩ জনের জন্য ছয় লাখ ৪৫ হাজার টাকা ২০২২-২৩ অর্থবছরে পরিচালিত ব্যয় বাবদ নায়েমের অনুকূলে প্রশিক্ষণ খাতে মোট ২৭ কোটি ৯২ লাখ টাকা বরাদ্দ থেকে ব্যয় নির্বাহ করা হবে।’

মহাপরিচালকের চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘কোর্স সমন্বয় কমিটির-২ এর সদস্য মাউশি হতে এবং ৩ এর সদস্য সেসিপ খাত হতে বিধি মোতাবেক টিএ/ডিএ প্রাপ্য হবেন। জনপ্রতি নির্ধারিত ১৫ হাজার টাকার অতিরিক্ত যে অর্থ ব্যয় হবে তা তারা নিজেরাই বহন করবেন এবং পরবর্তীতে এর জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগে কোন দাবি পেশ করবেন না।’

বৃহস্পতিবার, ০৪ আগস্ট ২০২২ , ২০ শ্রাবণ ১৪২৯ ৫ মহররম ১৪৪৪

বিদেশ ভ্রমণ বন্ধ, তারপরও ৪৫ জন শিক্ষক-কর্মকর্তাকে পাঠানো হচ্ছে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

শিক্ষা ব্যবস্থাপনার ওপর প্রশিক্ষণ নিতে ৪৫ জন শিক্ষক-কর্মকর্তা থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনাম সফরে যাচ্ছেন। এসব কর্মকর্তার আগামী ২১ থেকে ২৫ আগস্ট দুই দেশ সফর করার কথা রয়েছে। এই বিদেশ সফরের আয়োজন করেছে জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি (নায়েম)। সংস্থাটির ‘২৫তম সিনিয়র স্টাফ কোর্স অন এডুকেশন অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট’ (এসএসসিইএম) প্রশিক্ষণ কোর্সের প্রশিক্ষণার্থীরা ও কোর্স সমন্বয় কমিটির সদস্যদের জন্য এই সফরের আয়োজন করা হয়েছে। এই সফরের ব্যয় নায়েম ও প্রশিক্ষণার্থীরা যৌথভাবে বহন করবেন।

প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের কোর্স নির্দেশিকা অনুসারে প্রশিক্ষণার্থীরা বিভিন্ন দেশের শিক্ষা প্রশাসন ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে অভিজ্ঞতা লাভের উদ্দেশে কর্মকর্তারা ভিয়েতনাম ও থাইল্যান্ডে যেতে আগ্রহী বলে নায়েম জানিয়েছে। এতে কোর্সে অংশগ্রহণকারী ৪০ জন প্রশিক্ষণার্থী কর্মকর্তা ও কোর্স সমন্বয়কারী পাঁচজন সদস্যসহ মোট ৪৫ জন এ সফরে অংশগ্রহণ করবেন।

জানতে চাইলে নায়েম মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. নিজামুল করিম সংবাদকে বলেন, ‘আমরা জনপ্রতি ১৫ হাজার টাকা করে দিচ্ছি। বাকি টাকা তারা (প্রশিক্ষণার্থী) নিজেরা বহন করবেন। এভাবে আমরা মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব দিয়েছি।’ দেশে ডলার সংকট ও সরকারের ব্যয় সঙ্কোচন নীতির আলোকে সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। এই অবস্থায় কর্মকর্তাদের বিদেশ সফরে পাঠানো ঠিক হচ্ছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের এটা নিয়মিত প্রশিক্ষণের অংশ। এখানে কোন বাধা নেই।’

জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা সংবাদকে বলেন, ‘সরকারি কর্মকর্তাদের নিয়মিত-অনিয়মিতসহ সব ধরনের বিদেশ সফরই নিয়ন্ত্রণের নির্দেশনা রয়েছে। এর ফাঁকফোকর দিয়ে কিছু করার সুযোগ নেই।’

সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক পরিপত্রে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ পরবর্তী অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার এবং বর্তমানে বৈশ্বিক সংকটের প্রেক্ষাপটে পুনরাদেশ না দেয়া পর্যন্ত সরকারি কর্মকর্তাদের সব ধরনের ভ্রমণ, সেমিনার, ওয়ার্কশপ উপলক্ষে বিদেশযাত্রা বন্ধ থাকবে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীরও নির্দেশনা রয়েছে।

ভিয়েতনাম ও থাইল্যান্ড সফরের বিষয়ে নায়েম মহাপরিচালক অধ্যাপক নিজামুল করিম স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বলা হয়েছে, এ সফরটি দেশ সম্পন্ন করার ক্ষেত্রে পূর্ববর্তী ‘এসএসসিইএম এবং এসিইএম’ কোর্সসমূহে জনপ্রতি ১৫ হাজার টাকা করে নায়েমের প্রশিক্ষণ বাজেট হতে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।’ এছাড়া বৈদেশিক শিক্ষাসফরের ক্ষেত্রে অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী স্থানীয় পর্যায়ের সফরের জন্য যে ব্যয় সংস্থান রয়েছে এর মধ্য থেকে এ ব্যয়ের সংকুলান করার নির্দেশনা রয়েছে উল্লেখ করে নিজামুল করিম বলেন, ‘সে মোতাবেক ২৫তম এসএসসিইএম’র শিক্ষা সফর খাতে ৪০ জন প্রশিক্ষণার্থী কর্মকর্তা ও কোর্স সমন্বয় কমিটির (তিনজন) সদস্যসহ ৪৩ জনের জন্য ছয় লাখ ৪৫ হাজার টাকা ২০২২-২৩ অর্থবছরে পরিচালিত ব্যয় বাবদ নায়েমের অনুকূলে প্রশিক্ষণ খাতে মোট ২৭ কোটি ৯২ লাখ টাকা বরাদ্দ থেকে ব্যয় নির্বাহ করা হবে।’

মহাপরিচালকের চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘কোর্স সমন্বয় কমিটির-২ এর সদস্য মাউশি হতে এবং ৩ এর সদস্য সেসিপ খাত হতে বিধি মোতাবেক টিএ/ডিএ প্রাপ্য হবেন। জনপ্রতি নির্ধারিত ১৫ হাজার টাকার অতিরিক্ত যে অর্থ ব্যয় হবে তা তারা নিজেরাই বহন করবেন এবং পরবর্তীতে এর জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগে কোন দাবি পেশ করবেন না।’