শুক্রবার, ০৫ আগস্ট ২০২২, ২১ শ্রাবণ ১৪২৯ ৬ মহররম ১৪৪৪

অস্ত্র মামলায় নূর হোসেনের যাবজ্জীবন

আলোচিত সাত খুন মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নূর হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত। গতকাল দুপুরে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক সাবিনা ইয়াসমিন আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর সালাহ্ উদ্দিন সুইট জানান, ২০১৪ সালের ১৫ মে দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলে নূর হোসেনের স্টোর রুমে অভিযান চালিয়ে একটি রিভলভার, আট রাউন্ড গুলি ও আটটি কার্তুজ উদ্ধার করে পুলিশ। এ বিষয়ে ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯(এ) ও ১৯(এফ) ধারায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়। তিন মাস পর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

এই মামলায় আসামি নূর হোসেনের বিরুদ্ধে চারজন সাক্ষী সাক্ষ্যপ্রদান করেন। সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত এই মামলার একমাত্র আসামি নূর হোসেনকে অস্ত্র আইনের ১৯(এ) ধারায় সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ১৯(এফ) ধারায়ও সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন। দুটি সাজাই একসঙ্গে কারাভোগ করার আদেশ প্রদান করেন আদালত।

পৃথক আরও একটি অস্ত্র ও মাদক মামলায় নূর হোসেনের বিরুদ্ধে আদালতে সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। অস্ত্র মামলায় একজন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ও দুইজন কনস্টেবল সাক্ষ্যপ্রদান করেছেন। মাদক মামলাটিতে এক পুলিশ কনস্টেবল সাক্ষ্যপ্রদান করেছেন। ২৯ সেপ্টেম্বর এ দুটি মামলার পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করা হয়েছে বলে অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর।

রায় ঘোষণার সময় এজলাসের সামনে ও আদালতপাড়ায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। রায় ঘোষণার পর কড়া নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে নূর হোসেনকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে প্রেরণ করা হয়। এর আগে আদালতের কার্যক্রমের জন্য কড়া নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে নূর হোসেনকে কাশিমপুর কারাগার থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আদালতে আনা হয় বলে জানান আদালত পুলিশের পরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান।

শুক্রবার, ০৫ আগস্ট ২০২২ , ২১ শ্রাবণ ১৪২৯ ৬ মহররম ১৪৪৪

অস্ত্র মামলায় নূর হোসেনের যাবজ্জীবন

প্রতিনিধি, নারায়ণগঞ্জ

আলোচিত সাত খুন মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নূর হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত। গতকাল দুপুরে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক সাবিনা ইয়াসমিন আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর সালাহ্ উদ্দিন সুইট জানান, ২০১৪ সালের ১৫ মে দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলে নূর হোসেনের স্টোর রুমে অভিযান চালিয়ে একটি রিভলভার, আট রাউন্ড গুলি ও আটটি কার্তুজ উদ্ধার করে পুলিশ। এ বিষয়ে ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯(এ) ও ১৯(এফ) ধারায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়। তিন মাস পর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

এই মামলায় আসামি নূর হোসেনের বিরুদ্ধে চারজন সাক্ষী সাক্ষ্যপ্রদান করেন। সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত এই মামলার একমাত্র আসামি নূর হোসেনকে অস্ত্র আইনের ১৯(এ) ধারায় সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ১৯(এফ) ধারায়ও সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন। দুটি সাজাই একসঙ্গে কারাভোগ করার আদেশ প্রদান করেন আদালত।

পৃথক আরও একটি অস্ত্র ও মাদক মামলায় নূর হোসেনের বিরুদ্ধে আদালতে সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। অস্ত্র মামলায় একজন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ও দুইজন কনস্টেবল সাক্ষ্যপ্রদান করেছেন। মাদক মামলাটিতে এক পুলিশ কনস্টেবল সাক্ষ্যপ্রদান করেছেন। ২৯ সেপ্টেম্বর এ দুটি মামলার পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করা হয়েছে বলে অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর।

রায় ঘোষণার সময় এজলাসের সামনে ও আদালতপাড়ায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। রায় ঘোষণার পর কড়া নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে নূর হোসেনকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে প্রেরণ করা হয়। এর আগে আদালতের কার্যক্রমের জন্য কড়া নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে নূর হোসেনকে কাশিমপুর কারাগার থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আদালতে আনা হয় বলে জানান আদালত পুলিশের পরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান।