যুদ্ধাপরাধের দায়ে পুতিনকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে : ইইউ

যুদ্ধাপরাধের দায়ে রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনকে আন্তর্জাতিক আদালতে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

ইইউ প্রধান উরসুলা ফন ডার লেইন এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, তিনি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনকে ইউক্রেনে যুদ্ধাপরাধের জন্য আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের মুখোমুখি করতে চান। ‘পুতিনকে অবশ্যই এই যুদ্ধে হারতে হবে এবং তার কর্মের মুখোমুখি হতে হবে, এটি আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ।’

ইউরোপীয় ইউনিয়নের এই প্রধান বৃহস্পতিবার ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ সফর করেন। তিনি বলেন, কোনো সন্দেহ নেই যে, ইউক্রেনে যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত হয়েছে। এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে এএফপি।

ফন ডার লেইন বলেন, ‘আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে এ বিষয়ে সম্ভাব্য কার্যক্রমের লক্ষ্যে আমরা সাক্ষ্য সংগ্রহের কাজকে এগিয়ে নেয়াকে সমর্থন করি। এটাই আমাদের আন্তর্জাতিক আইনি ব্যবস্থার ভিত্তি, যে আমরা এই অপরাধের শাস্তি দিই। এবং শেষ পর্যন্ত পুতিন দায়ী।’

পুতিনকে একদিন আদালতে হাজির করা হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি জবাব দেনÑ‘আমি বিশ্বাস করি এটা সম্ভব।’ ইউক্রেনে তার সফরের সময়, ভন ডার লেইন প্রতিশ্রুতি দেন যে, যুদ্ধ-বিধ্বস্ত এই দেশটিকে ‘যতদিন সময় লাগে’ সমর্থন দিতে থাকবে ইউরোপ।

এর আগে ইউক্রেনে রাশিয়ার চলমান সামরিক অভিযানে হওয়া ‘জঘন্য যুদ্ধপরাধের জন্য’ পুতিন দায়ী বলে মন্তব্য

করেছিলেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। গত মে মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে এক অঘোষিত সফরে ইউক্রেনে গিয়ে এই মন্তব্য করেছিলেন তিনি।

সে সময় ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্টের সঙ্গে এক সংবাদ সম্মেলনে জাস্টিন ট্রুডো বলেন, ‘জঘন্য যুদ্ধাপরাধের জন্য যে পুতিন দায়ী, এটি স্পষ্ট। এখানে অবশ্যই জবাবদিহিতা থাকতে হবে।’

এর আগে পুতিনকে ‘যুদ্ধাপরাধী’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ইউক্রেনে সামরিক অভিযান পরিচালনা করার প্রায় এক মাসের মাথায় রুশ প্রেসিডেন্টকে এই তকমা দেন তিনি।

ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের নিন্দা জানিয়ে পুতিনকে যুদ্ধাপরাধী আখ্যা দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের সিনেট। মার্চ মাসেই হওয়া এক ভোটাভুটিতে সর্বসম্মতিক্রমে মার্কিন সিনেট পুতিনকে নিন্দা জানিয়ে যুদ্ধাপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করে।

শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ , ০৩ আশ্বিন ১৪২৯ ১৯ সফর ১৪৪৪

যুদ্ধাপরাধের দায়ে পুতিনকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে : ইইউ

যুদ্ধাপরাধের দায়ে রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনকে আন্তর্জাতিক আদালতে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

ইইউ প্রধান উরসুলা ফন ডার লেইন এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, তিনি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনকে ইউক্রেনে যুদ্ধাপরাধের জন্য আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের মুখোমুখি করতে চান। ‘পুতিনকে অবশ্যই এই যুদ্ধে হারতে হবে এবং তার কর্মের মুখোমুখি হতে হবে, এটি আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ।’

ইউরোপীয় ইউনিয়নের এই প্রধান বৃহস্পতিবার ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ সফর করেন। তিনি বলেন, কোনো সন্দেহ নেই যে, ইউক্রেনে যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত হয়েছে। এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে এএফপি।

ফন ডার লেইন বলেন, ‘আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে এ বিষয়ে সম্ভাব্য কার্যক্রমের লক্ষ্যে আমরা সাক্ষ্য সংগ্রহের কাজকে এগিয়ে নেয়াকে সমর্থন করি। এটাই আমাদের আন্তর্জাতিক আইনি ব্যবস্থার ভিত্তি, যে আমরা এই অপরাধের শাস্তি দিই। এবং শেষ পর্যন্ত পুতিন দায়ী।’

পুতিনকে একদিন আদালতে হাজির করা হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি জবাব দেনÑ‘আমি বিশ্বাস করি এটা সম্ভব।’ ইউক্রেনে তার সফরের সময়, ভন ডার লেইন প্রতিশ্রুতি দেন যে, যুদ্ধ-বিধ্বস্ত এই দেশটিকে ‘যতদিন সময় লাগে’ সমর্থন দিতে থাকবে ইউরোপ।

এর আগে ইউক্রেনে রাশিয়ার চলমান সামরিক অভিযানে হওয়া ‘জঘন্য যুদ্ধপরাধের জন্য’ পুতিন দায়ী বলে মন্তব্য

করেছিলেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। গত মে মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে এক অঘোষিত সফরে ইউক্রেনে গিয়ে এই মন্তব্য করেছিলেন তিনি।

সে সময় ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্টের সঙ্গে এক সংবাদ সম্মেলনে জাস্টিন ট্রুডো বলেন, ‘জঘন্য যুদ্ধাপরাধের জন্য যে পুতিন দায়ী, এটি স্পষ্ট। এখানে অবশ্যই জবাবদিহিতা থাকতে হবে।’

এর আগে পুতিনকে ‘যুদ্ধাপরাধী’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ইউক্রেনে সামরিক অভিযান পরিচালনা করার প্রায় এক মাসের মাথায় রুশ প্রেসিডেন্টকে এই তকমা দেন তিনি।

ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের নিন্দা জানিয়ে পুতিনকে যুদ্ধাপরাধী আখ্যা দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের সিনেট। মার্চ মাসেই হওয়া এক ভোটাভুটিতে সর্বসম্মতিক্রমে মার্কিন সিনেট পুতিনকে নিন্দা জানিয়ে যুদ্ধাপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করে।