গণপরিবহনে নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, দুই ধর্ষক গ্রেপ্তার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একটি গণপরিবহনে (বাস) চল্লিশ বছর বয়সী এক নারীকে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণের ঘটনায় নজরুল ইসলাম (২৬) ও কেফায়েত উল্লাহ তামিম (২১) নামে দুই ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত শনিবার রাতে পৃথক অভিযানে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত নজরুল ইসলাম নরসিংদী জেলার শিবপুর উপজেলার ঘাশিরদিয়া গ্রামের মোখলেছুর রহমানের ছেলে ও কেফায়েত উল্লাহ তামিম ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা রামরাইল ইউনিয়নের বিয়াল্লিশ্বর গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে।

গ্রেপ্তারকৃত নজরুল ইসলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক্সপ্রেস প্রা. লি. নামক পরিবহনের একটি বাসের চালক ও তামিম বিয়াল্লিশ্বর এলাকায় অবস্থিত তামিম টিম্বার মিলের মালিকের ছেলে।

পুলিশ জানায়, গত শুক্রবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক্সপ্রেস প্রা. লি. নামক পরিবহনের একটি বাস পার্কিং করা অবস্থায় বাসের মধ্যে ওই নারীকে তিনজন সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে। পুনরায় তারা ওই নারীকে বিয়াল্লিশ্বর এলাকায় অবস্থিত তামিম টিম্বার মিলে নিয়ে পুনরায় ধর্ষণ করে।

এ ঘটনায় ভিকটিম শনিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এমরানুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রোববার দুপুরে গ্রেপ্তারকৃতদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর আসামিকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ , ০৩ আশ্বিন ১৪২৯ ২১ সফর ১৪৪৪

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়

গণপরিবহনে নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, দুই ধর্ষক গ্রেপ্তার

জেলা বার্তা পরিবেশক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একটি গণপরিবহনে (বাস) চল্লিশ বছর বয়সী এক নারীকে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণের ঘটনায় নজরুল ইসলাম (২৬) ও কেফায়েত উল্লাহ তামিম (২১) নামে দুই ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত শনিবার রাতে পৃথক অভিযানে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত নজরুল ইসলাম নরসিংদী জেলার শিবপুর উপজেলার ঘাশিরদিয়া গ্রামের মোখলেছুর রহমানের ছেলে ও কেফায়েত উল্লাহ তামিম ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা রামরাইল ইউনিয়নের বিয়াল্লিশ্বর গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে।

গ্রেপ্তারকৃত নজরুল ইসলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক্সপ্রেস প্রা. লি. নামক পরিবহনের একটি বাসের চালক ও তামিম বিয়াল্লিশ্বর এলাকায় অবস্থিত তামিম টিম্বার মিলের মালিকের ছেলে।

পুলিশ জানায়, গত শুক্রবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক্সপ্রেস প্রা. লি. নামক পরিবহনের একটি বাস পার্কিং করা অবস্থায় বাসের মধ্যে ওই নারীকে তিনজন সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে। পুনরায় তারা ওই নারীকে বিয়াল্লিশ্বর এলাকায় অবস্থিত তামিম টিম্বার মিলে নিয়ে পুনরায় ধর্ষণ করে।

এ ঘটনায় ভিকটিম শনিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এমরানুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রোববার দুপুরে গ্রেপ্তারকৃতদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর আসামিকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।