অপহরণের ৪ দিন পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে এক স্কুল ছাত্রীকে অপহরণের ৪ দিন পর নারায়ণগঞ্জ থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১১। গ্রেপ্তার করা হয়েছে অপহরণকারী হাসানুর রহমান সুজনকে (১৯)। অপহৃতা ছাত্রী উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের পাঁচবাড়িয়া এলাকার কে এম আহাদের কন্যা। সে পুরিন্দা সাদিকুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী। গ্রেপ্তারকৃত হাসানুর রহমান সুজন রংপুর জেলার সদর থানার সাহেবগঞ্জ পাঠানটারি এলাকার ইকরামুল হকের ছেলে। সে নারায়ণগঞ্জের হাজীঞ্জে পাঠানটলি সেলিনা বিল্ডিংয়ে ভাড়া থাকে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ১০ নভেম্বর সকাল ৮টার দিকে ছাত্রীটি প্রাইভেট পড়তে এবং স্কুলের নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশ নিতে বাড়ি থেকে বের হয়। এ দিন দুপুর ১২টার দিকে স্কুলের সামনে থেকে অপহরণ হয় সে।

তার কিছুক্ষন পর অপহরণকারী হাসানুর রহমান সুজন অপহৃতার মাকে মোবাইলে ফোনে অপহরণের কথা জানায় এবং মেয়েকে ফেরত পেতে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। পরে এ ঘটনাটি আড়াইহাজার থানা পুলিশ ও র‌্যাব-১১ কে জানানো হয়।

১৪ নভেম্বর রাত সাড়ে ৯টার দিকে র‌্যাবের একটি টিম নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে অপহৃতা ছাত্রিটিকে উদ্ধার করে এবং অপহরণের সাথে জড়িত হাসানুর রহমান সুজনকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় অপহৃতার পিতা কে এম আহাদ বাদী হয়ে আড়াইহাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আড়াইহাজার থানার ওসি আজিজুল হক হাওলাদার মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার, ১৬ নভেম্বর ২০২২ , ০১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ২০ রবিউস সানি ১৪৪৪

অপহরণের ৪ দিন পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার

প্রতিনিধি, আড়াইহাজার (নারায়ণগঞ্জ)

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে এক স্কুল ছাত্রীকে অপহরণের ৪ দিন পর নারায়ণগঞ্জ থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১১। গ্রেপ্তার করা হয়েছে অপহরণকারী হাসানুর রহমান সুজনকে (১৯)। অপহৃতা ছাত্রী উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের পাঁচবাড়িয়া এলাকার কে এম আহাদের কন্যা। সে পুরিন্দা সাদিকুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী। গ্রেপ্তারকৃত হাসানুর রহমান সুজন রংপুর জেলার সদর থানার সাহেবগঞ্জ পাঠানটারি এলাকার ইকরামুল হকের ছেলে। সে নারায়ণগঞ্জের হাজীঞ্জে পাঠানটলি সেলিনা বিল্ডিংয়ে ভাড়া থাকে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ১০ নভেম্বর সকাল ৮টার দিকে ছাত্রীটি প্রাইভেট পড়তে এবং স্কুলের নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশ নিতে বাড়ি থেকে বের হয়। এ দিন দুপুর ১২টার দিকে স্কুলের সামনে থেকে অপহরণ হয় সে।

তার কিছুক্ষন পর অপহরণকারী হাসানুর রহমান সুজন অপহৃতার মাকে মোবাইলে ফোনে অপহরণের কথা জানায় এবং মেয়েকে ফেরত পেতে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। পরে এ ঘটনাটি আড়াইহাজার থানা পুলিশ ও র‌্যাব-১১ কে জানানো হয়।

১৪ নভেম্বর রাত সাড়ে ৯টার দিকে র‌্যাবের একটি টিম নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে অপহৃতা ছাত্রিটিকে উদ্ধার করে এবং অপহরণের সাথে জড়িত হাসানুর রহমান সুজনকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় অপহৃতার পিতা কে এম আহাদ বাদী হয়ে আড়াইহাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আড়াইহাজার থানার ওসি আজিজুল হক হাওলাদার মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।