নান্দাইল শহীদ দিবস আজ

আজ ১৭ নভেম্বর ময়মনসিংহের ‘নান্দাইল শহীদ দিবস’। দিবসটি উজ্জাপন উপলক্ষ্যে নান্দাইল উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের আয়োজনে প্রতিবছর বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়। শহীদদের স্মরণে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণসহ আলোচনা সভা ও অন্যান্ন নানান কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে দিনটি পালন করা হয়। এছাড়াও প্রেসক্লাব নান্দাইল, সামাজিক উদ্যোগ (নাসাউ), প্রজন্ম ’৭১ ও উত্তরাধিকার নান্দাইল ‘৭১ সহ বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচি গ্রহণ করে।

রক্তঝরা ১৯৭১ সালের এই দিনে নান্দাইলকে মুক্ত করতে মুক্তিযোদ্ধারা পাকহানাদারদের ঘাঁটি নান্দাইল থানা আক্রমণ করেছিল। কিন্ত তাদের আক্রমণের খবর আগেই ফাঁস হয়ে যাওয়ায় দীর্ঘ সাড়ে চার ঘন্টা যুদ্ধ করেও মুক্তিযোদ্ধরা পিছু হটতে বাধ্য হন। এই যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা শামছুল হক, ইলিয়াছ উদ্দিন, আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রইছ উদ্দিন ভূইয়া এবং চাঁন মিয়া শহীদ হন।

পরে আওয়ামী লীগের থানা শাখার তৎকালীন সভাপতি শাহনেওয়াজ ভুইয়া ও ছুবেদ আলীকে রাজাকার ও তাদের সহযোগীরা গুলি করে হত্যা করে। সারা নান্দাইলে স্বাধীনতার পক্ষের লোকজনের বাড়িতে অগ্নিসংযোগসহ ধ্বংসযজ্ঞ চালানো হয়। ওই দিনটি নান্দাইলবাসীর জন্য অত্যন্ত শোকাবহ একটি দিন। স্বাধীনতার পর থেকে তাই নান্দাইলের শহীদদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে প্রতিবছর ১৭ নভেম্বর ‘নান্দাইল শহীদ দিবস’ হিসেবে দিনটি পালিত হয়ে আসছে।

বৃহস্পতিবার, ১৭ নভেম্বর ২০২২ , ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ২১ রবিউস সানি ১৪৪৪

নান্দাইল শহীদ দিবস আজ

প্রতিনিধি, নান্দাইল (ময়মনসিংহ)

image

আজ ১৭ নভেম্বর ময়মনসিংহের ‘নান্দাইল শহীদ দিবস’। দিবসটি উজ্জাপন উপলক্ষ্যে নান্দাইল উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের আয়োজনে প্রতিবছর বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়। শহীদদের স্মরণে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণসহ আলোচনা সভা ও অন্যান্ন নানান কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে দিনটি পালন করা হয়। এছাড়াও প্রেসক্লাব নান্দাইল, সামাজিক উদ্যোগ (নাসাউ), প্রজন্ম ’৭১ ও উত্তরাধিকার নান্দাইল ‘৭১ সহ বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচি গ্রহণ করে।

রক্তঝরা ১৯৭১ সালের এই দিনে নান্দাইলকে মুক্ত করতে মুক্তিযোদ্ধারা পাকহানাদারদের ঘাঁটি নান্দাইল থানা আক্রমণ করেছিল। কিন্ত তাদের আক্রমণের খবর আগেই ফাঁস হয়ে যাওয়ায় দীর্ঘ সাড়ে চার ঘন্টা যুদ্ধ করেও মুক্তিযোদ্ধরা পিছু হটতে বাধ্য হন। এই যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা শামছুল হক, ইলিয়াছ উদ্দিন, আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রইছ উদ্দিন ভূইয়া এবং চাঁন মিয়া শহীদ হন।

পরে আওয়ামী লীগের থানা শাখার তৎকালীন সভাপতি শাহনেওয়াজ ভুইয়া ও ছুবেদ আলীকে রাজাকার ও তাদের সহযোগীরা গুলি করে হত্যা করে। সারা নান্দাইলে স্বাধীনতার পক্ষের লোকজনের বাড়িতে অগ্নিসংযোগসহ ধ্বংসযজ্ঞ চালানো হয়। ওই দিনটি নান্দাইলবাসীর জন্য অত্যন্ত শোকাবহ একটি দিন। স্বাধীনতার পর থেকে তাই নান্দাইলের শহীদদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে প্রতিবছর ১৭ নভেম্বর ‘নান্দাইল শহীদ দিবস’ হিসেবে দিনটি পালিত হয়ে আসছে।