‘বুকের মধ্যে আগুন’ নিয়ে বিতর্কের ঝড় কাল্পনিক দাবি করলেন অপূর্ব

অনেকটা নীরবে ভারতীয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম হইচইতে মুক্তি পেয়েছে নতুন সিরিজ ‘বুকের মধ্যে আগুন’। নির্মাণ করেছেন তানিম রহমান অংশু। হইচই থেকে যখন এই সিরিজের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয় তখনই সিরিজটি বিতর্কের জন্ম দেয়। কারণ, গুঞ্জন ওঠে, এটি বানানো হয়েছে নব্বই দশকের জনপ্রিয় নায়ক সালমান শাহর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে। যদিও নির্মাতা, শিল্পী বা প্রচারমাধ্যম, সবার দাবি এটি কাল্পনিক গল্পে নির্মিত। তবে প্রয়াত নায়কের মা নীলা চৌধুরী একটি আইনি নোটিশও পাঠিয়েছিলেন। যে কারণে সিরিজটির মুক্তি স্থগিত করা হয়। কিন্তু নোটিশের তোয়াক্কা না করে ২ মার্চ নীরবেই সিরিজটি মুক্তি দিয়ে পুনরায় বিতর্কের ঝড় তুললো সংশ্লিষ্টরা। ওইদিন রাতে হুট করেই যখন সিরিজটি হইচইতে মুক্তি পায়, এরপর আর কারও বুঝতে বাকি নেই, এটি সালমান শাহর ঘটনা নিয়েই বানানো হয়েছে। যেখানে সালমান শাহের আদলে দেখা গেছে ইয়াশ রোহানকে, তার স্ত্রীর (সামিরা) মতো দেখা গেছে তমা মির্জাকে, নায়কের মা নীলা চৌধুরীর মতো লেগেছে তানিয়া আহমেদকে, নায়িকা শাবনূরের মতো শাহনাজ সুমি, রাজনীতিক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের গেটআপে তৌকীর আহমেদ, প্রযোজক আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের অবয়বে আছেন তারিক আনাম খান। এমনকি এতে সালমান শাহের ব্যবহার করা আলোচিত ডানামেলা গাড়িটিও দেখা গেছে এই সিরিজে। এতে অপূর্ব অভিনয় করেছেন এএসপি গোলাম মামুনের চরিত্রে। গল্পের মূল প্রেক্ষাপটও সালমান শাহর মৃত্যুরহস্যের সঙ্গে হুবহু মিলে যায়।

তবে এখনও সিরিজটিকে ‘কাল্পনিক’ বলে দাবি করছেন জিয়াউল ফারুক অপূর্ব। তার দাবি, কল্পনাপ্রসূত গল্পেই এটি বানানো হয়েছে। শনিবার (৪ মার্চ) রাতে একটি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন তিনি। অপূর্ব বলেন, ‘এটা একটা ফিকশন হিসেবে পরিচালক তুলে ধরেছেন। আমাদের পক্ষ থেকে আমরা আগেও বলেছি যে এটা ফিকশন। যদি ওনাকে (সালমান শাহ) নিয়ে স্টোরিটা হতো, তাহলে বলা হতো ‘বেজড অন অ্যা ট্রু স্টোরি’ (সত্য ঘটনা অবলম্বনে)। কিন্তু গল্পের কোথাও এটা উল্লেখ নেই। আমরা এটাকে ফিকশন হিসেবেই বিবেচনা করছি।’

হইচই থেকে যখন এই সিরিজের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়, তখনই এর নাম থেকে ‘সালমান শাহ’ ঘটনার ইঙ্গিত পায় তার পরিবার ও ভক্তরা। কারণ, সিরিজটির নাম ‘বুকের মধ্যে আগুন’, আর সালমান শাহর শেষ ছবি ‘বুকের ভেতর আগুন’!

মঙ্গলবার, ০৭ মার্চ ২০২৩ , ২২ ফাল্গুন ১৪২৯, ১৪ শবান ১৪৪৪

‘বুকের মধ্যে আগুন’ নিয়ে বিতর্কের ঝড় কাল্পনিক দাবি করলেন অপূর্ব

বিনোদন প্রতিবেদক

image

অনেকটা নীরবে ভারতীয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম হইচইতে মুক্তি পেয়েছে নতুন সিরিজ ‘বুকের মধ্যে আগুন’। নির্মাণ করেছেন তানিম রহমান অংশু। হইচই থেকে যখন এই সিরিজের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয় তখনই সিরিজটি বিতর্কের জন্ম দেয়। কারণ, গুঞ্জন ওঠে, এটি বানানো হয়েছে নব্বই দশকের জনপ্রিয় নায়ক সালমান শাহর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে। যদিও নির্মাতা, শিল্পী বা প্রচারমাধ্যম, সবার দাবি এটি কাল্পনিক গল্পে নির্মিত। তবে প্রয়াত নায়কের মা নীলা চৌধুরী একটি আইনি নোটিশও পাঠিয়েছিলেন। যে কারণে সিরিজটির মুক্তি স্থগিত করা হয়। কিন্তু নোটিশের তোয়াক্কা না করে ২ মার্চ নীরবেই সিরিজটি মুক্তি দিয়ে পুনরায় বিতর্কের ঝড় তুললো সংশ্লিষ্টরা। ওইদিন রাতে হুট করেই যখন সিরিজটি হইচইতে মুক্তি পায়, এরপর আর কারও বুঝতে বাকি নেই, এটি সালমান শাহর ঘটনা নিয়েই বানানো হয়েছে। যেখানে সালমান শাহের আদলে দেখা গেছে ইয়াশ রোহানকে, তার স্ত্রীর (সামিরা) মতো দেখা গেছে তমা মির্জাকে, নায়কের মা নীলা চৌধুরীর মতো লেগেছে তানিয়া আহমেদকে, নায়িকা শাবনূরের মতো শাহনাজ সুমি, রাজনীতিক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের গেটআপে তৌকীর আহমেদ, প্রযোজক আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের অবয়বে আছেন তারিক আনাম খান। এমনকি এতে সালমান শাহের ব্যবহার করা আলোচিত ডানামেলা গাড়িটিও দেখা গেছে এই সিরিজে। এতে অপূর্ব অভিনয় করেছেন এএসপি গোলাম মামুনের চরিত্রে। গল্পের মূল প্রেক্ষাপটও সালমান শাহর মৃত্যুরহস্যের সঙ্গে হুবহু মিলে যায়।

তবে এখনও সিরিজটিকে ‘কাল্পনিক’ বলে দাবি করছেন জিয়াউল ফারুক অপূর্ব। তার দাবি, কল্পনাপ্রসূত গল্পেই এটি বানানো হয়েছে। শনিবার (৪ মার্চ) রাতে একটি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন তিনি। অপূর্ব বলেন, ‘এটা একটা ফিকশন হিসেবে পরিচালক তুলে ধরেছেন। আমাদের পক্ষ থেকে আমরা আগেও বলেছি যে এটা ফিকশন। যদি ওনাকে (সালমান শাহ) নিয়ে স্টোরিটা হতো, তাহলে বলা হতো ‘বেজড অন অ্যা ট্রু স্টোরি’ (সত্য ঘটনা অবলম্বনে)। কিন্তু গল্পের কোথাও এটা উল্লেখ নেই। আমরা এটাকে ফিকশন হিসেবেই বিবেচনা করছি।’

হইচই থেকে যখন এই সিরিজের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়, তখনই এর নাম থেকে ‘সালমান শাহ’ ঘটনার ইঙ্গিত পায় তার পরিবার ও ভক্তরা। কারণ, সিরিজটির নাম ‘বুকের মধ্যে আগুন’, আর সালমান শাহর শেষ ছবি ‘বুকের ভেতর আগুন’!