বিকাশ অ্যাপে নতুন নতুন ফিচার

বিদ্যুৎ বিল কখন দিতে হবে তা এখন আর আলাদা করে মনে রাখার প্রয়োজন পড়বে না বিকাশ গ্রাহকদের। বিকাশ অ্যাপ থেকে অটো-পে সেবা নিয়ে বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি ইত্যাদির মতো ইউটিলিটি সার্ভিস নেয়া এখন বাস্তবতা। গ্রাহকদের এমন আরো অনেক সুবিধার কথা বিবেচনায় রেখে আরো সমৃদ্ধ করা হলো বিকাশ অ্যাপ। সম্প্রতি বিকাশ অ্যাপে যুক্ত হয়েছে ইউটিলিটি বিল অটো-পে করার অপশন, ইনবক্স ও স্টেটমেন্ট থেকে লেনদেনের চার্জ দেখার পাশাপাশি লেনদেনের তথ্য সহজেই যে কোনো মাধ্যমে শেয়ার এবং লেনদেন সম্পন্ন হলে অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স গোপন করে কনফার্মেশন শেয়ার করার সুবিধা।

ইউটিলিটি বিল অটো-পে গ্রাহকদের ইউটিলিটি বিল পরিশোধ আরো সহজ করতে বিকাশ অ্যাপে যুক্ত হয়েছে ‘অটো-পে’ সুবিধা। প্রতি মাসের নির্দিষ্ট প্রিপেইড বিল স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিশোধ হয়ে যাবে এই সেবা চালু থাকলে। ফলে নির্ধারিত তারিখে প্রিপেইড বিল পরিশোধ করতে ভুলে যাওয়া এবং ইউটিলিটি সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার দুশ্চিন্তা দূর হবে গ্রাহকদের।

সেবাটি চালু করতে বিকাশ অ্যাপের ‘মাই বিকাশ’ কিংবা বিকাশ মেন্যু থেকে ‘অটো-পে’ সিলেক্ট করে ‘নতুন অটো-পে’ বাটনে ট্যাপ করতে হবে। পরের ধাপে কোন ধরনের বিল তা নির্বাচন করে বিল অ্যাকাউন্টের বিস্তারিত, বিলের পরিমাণ এবং কতো তারিখে অটো-পে হবে তা নির্ধারণ করতে হবে। এরপর সম্মতি দিলেই চালু হয়ে যাবে অটো-পে। এরপর প্রতি মাসে নির্ধারিত দিনের আগে বিকাশই মেসেজের মাধ্যমে গ্রাহককে জানিয়ে দেবে পর্যাপ্ত ব্যালেন্স রাখার কথা। গ্রাহক চাইলে একাধিক প্রিপেইড বিলের ক্ষেত্রে অটো-পে চালু করে রাখতে পারেন। আবার যে কোনো সময় যে কোনো অটো-পে অপশন বাতিলও করতে পারেন। অটো-পে মেন্যু থেকেই তালিকা এবং বিস্তারিত দেখা যাবে। এছাড়া টিউটোরিয়াল দেখার সুযোগও আছে।

স্টেটমেন্টের সঙ্গে চার্জ দেখার সুবিধা ও লেনদেনের তথ্য শেয়ার করার অপশন : বিকাশ অ্যাপের ইনবক্স অথবা বিকাশ মেন্যুর স্টেটমেন্ট অপশনে গ্রাহক তার সর্বশেষ লেনদেনের চিত্র দেখতে পান। এখন সেখানে প্রতিটি লেনদেনের সঙ্গেই যুক্ত হয়েছে কত চার্জ খরচ হয়েছে তার রেকর্ডও। ফলে গ্রাহক তার দৈনন্দিন লেনদেনের আরো বিস্তারিত হিসাব রাখতে পারবেন।

এর পাশাপাশি নতুন যোগ হয়েছে ইনবক্স থেকে ট্রানজেকশন ডিটেইলস শেয়ার করার আরো সহজ পদ্ধতি। এখন লেনদেনের পরিমাণ, সময়, ট্রানজেকশন আইডি সহ সম্পূর্ণ বিস্তারিত তথ্যই শেয়ার করা যাবে যেকোনো যোগাযোগ মাধ্যমে। ফলে ইনবক্সে থাকা সব লেনদেনের স্ক্রিনশট থেকে কিছু অংশ কেটে কাউকে পাঠানোর ঝামেলা দূর হলো নতুন এই ফিচারের মাধ্যমে। কাউকে লেনদেনের তথ্য শেয়ার করতে বিকাশ অ্যাপের ইনবক্স থেকে নির্দিষ্ট লেনদেনের ওপর ট্যাপ করলে স্ক্রিনের নিচের দিকে একটি আলাদা কার্ডের মতো অংশে দেখা যাবে বিস্তারিত, যেখান থেকে ‘শেয়ার’ বাটনে ট্যাপ করতে হবে। এরপর মেসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ-এর মতো যেকোনো যোগাযোগ মাধ্যমে তা শেয়ার করা যাবে। এমনকি গ্রাহক চাইলে অ্যাপের ইনবক্স থেকে পে বিলের রিসিট ডাউনলোডও করতে পারবেন।

লেনদেন শেষে ব্যালেন্স গোপন করে কনফার্মেশন শেয়ার করার অপশন : গ্রাহক চাইলে লেনদেন শেষে তার অ্যাকাউন্টের ‘নতুন ব্যালেন্স’ অংশটি গোপন রাখতে পারবেন। ফলে, কাউকে টাকা পাঠিয়ে বা পেমেন্টের পর স্ক্রিনশট পাঠাতে চাইলে এখন আর গ্রাহককে ‘ব্যবহারযোগ্য ব্যালেন্স’ মুছে ফেলার জন্য সময় নষ্ট করতে হবে না। গ্রাহকরা যে কোনো পণ্যের হোম ডেলিভারি নিয়েও লেনদেনের বিস্তারিত সহজেই শেয়ার করতে পারবেন নিজ অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স গোপন রেখেই।

শুক্রবার, ১২ মে ২০২৩ , ২৯ বৈশাখ ১৪৩০, ২১ ‍শাওয়াল ১৪৪৪

বিকাশ অ্যাপে নতুন নতুন ফিচার

মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন

বিদ্যুৎ বিল কখন দিতে হবে তা এখন আর আলাদা করে মনে রাখার প্রয়োজন পড়বে না বিকাশ গ্রাহকদের। বিকাশ অ্যাপ থেকে অটো-পে সেবা নিয়ে বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি ইত্যাদির মতো ইউটিলিটি সার্ভিস নেয়া এখন বাস্তবতা। গ্রাহকদের এমন আরো অনেক সুবিধার কথা বিবেচনায় রেখে আরো সমৃদ্ধ করা হলো বিকাশ অ্যাপ। সম্প্রতি বিকাশ অ্যাপে যুক্ত হয়েছে ইউটিলিটি বিল অটো-পে করার অপশন, ইনবক্স ও স্টেটমেন্ট থেকে লেনদেনের চার্জ দেখার পাশাপাশি লেনদেনের তথ্য সহজেই যে কোনো মাধ্যমে শেয়ার এবং লেনদেন সম্পন্ন হলে অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স গোপন করে কনফার্মেশন শেয়ার করার সুবিধা।

ইউটিলিটি বিল অটো-পে গ্রাহকদের ইউটিলিটি বিল পরিশোধ আরো সহজ করতে বিকাশ অ্যাপে যুক্ত হয়েছে ‘অটো-পে’ সুবিধা। প্রতি মাসের নির্দিষ্ট প্রিপেইড বিল স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিশোধ হয়ে যাবে এই সেবা চালু থাকলে। ফলে নির্ধারিত তারিখে প্রিপেইড বিল পরিশোধ করতে ভুলে যাওয়া এবং ইউটিলিটি সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার দুশ্চিন্তা দূর হবে গ্রাহকদের।

সেবাটি চালু করতে বিকাশ অ্যাপের ‘মাই বিকাশ’ কিংবা বিকাশ মেন্যু থেকে ‘অটো-পে’ সিলেক্ট করে ‘নতুন অটো-পে’ বাটনে ট্যাপ করতে হবে। পরের ধাপে কোন ধরনের বিল তা নির্বাচন করে বিল অ্যাকাউন্টের বিস্তারিত, বিলের পরিমাণ এবং কতো তারিখে অটো-পে হবে তা নির্ধারণ করতে হবে। এরপর সম্মতি দিলেই চালু হয়ে যাবে অটো-পে। এরপর প্রতি মাসে নির্ধারিত দিনের আগে বিকাশই মেসেজের মাধ্যমে গ্রাহককে জানিয়ে দেবে পর্যাপ্ত ব্যালেন্স রাখার কথা। গ্রাহক চাইলে একাধিক প্রিপেইড বিলের ক্ষেত্রে অটো-পে চালু করে রাখতে পারেন। আবার যে কোনো সময় যে কোনো অটো-পে অপশন বাতিলও করতে পারেন। অটো-পে মেন্যু থেকেই তালিকা এবং বিস্তারিত দেখা যাবে। এছাড়া টিউটোরিয়াল দেখার সুযোগও আছে।

স্টেটমেন্টের সঙ্গে চার্জ দেখার সুবিধা ও লেনদেনের তথ্য শেয়ার করার অপশন : বিকাশ অ্যাপের ইনবক্স অথবা বিকাশ মেন্যুর স্টেটমেন্ট অপশনে গ্রাহক তার সর্বশেষ লেনদেনের চিত্র দেখতে পান। এখন সেখানে প্রতিটি লেনদেনের সঙ্গেই যুক্ত হয়েছে কত চার্জ খরচ হয়েছে তার রেকর্ডও। ফলে গ্রাহক তার দৈনন্দিন লেনদেনের আরো বিস্তারিত হিসাব রাখতে পারবেন।

এর পাশাপাশি নতুন যোগ হয়েছে ইনবক্স থেকে ট্রানজেকশন ডিটেইলস শেয়ার করার আরো সহজ পদ্ধতি। এখন লেনদেনের পরিমাণ, সময়, ট্রানজেকশন আইডি সহ সম্পূর্ণ বিস্তারিত তথ্যই শেয়ার করা যাবে যেকোনো যোগাযোগ মাধ্যমে। ফলে ইনবক্সে থাকা সব লেনদেনের স্ক্রিনশট থেকে কিছু অংশ কেটে কাউকে পাঠানোর ঝামেলা দূর হলো নতুন এই ফিচারের মাধ্যমে। কাউকে লেনদেনের তথ্য শেয়ার করতে বিকাশ অ্যাপের ইনবক্স থেকে নির্দিষ্ট লেনদেনের ওপর ট্যাপ করলে স্ক্রিনের নিচের দিকে একটি আলাদা কার্ডের মতো অংশে দেখা যাবে বিস্তারিত, যেখান থেকে ‘শেয়ার’ বাটনে ট্যাপ করতে হবে। এরপর মেসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ-এর মতো যেকোনো যোগাযোগ মাধ্যমে তা শেয়ার করা যাবে। এমনকি গ্রাহক চাইলে অ্যাপের ইনবক্স থেকে পে বিলের রিসিট ডাউনলোডও করতে পারবেন।

লেনদেন শেষে ব্যালেন্স গোপন করে কনফার্মেশন শেয়ার করার অপশন : গ্রাহক চাইলে লেনদেন শেষে তার অ্যাকাউন্টের ‘নতুন ব্যালেন্স’ অংশটি গোপন রাখতে পারবেন। ফলে, কাউকে টাকা পাঠিয়ে বা পেমেন্টের পর স্ক্রিনশট পাঠাতে চাইলে এখন আর গ্রাহককে ‘ব্যবহারযোগ্য ব্যালেন্স’ মুছে ফেলার জন্য সময় নষ্ট করতে হবে না। গ্রাহকরা যে কোনো পণ্যের হোম ডেলিভারি নিয়েও লেনদেনের বিস্তারিত সহজেই শেয়ার করতে পারবেন নিজ অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স গোপন রেখেই।