১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন মাত্র ৫০ শতাংশ

চলতি অর্থবছরের এপ্রিল পর্যন্ত ১০ মাসে সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির মাত্র ৫০ শতাংশ বাস্তবায়ন হওয়ার তথ্য দিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। গত বৃহস্পতিবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ বৈঠক পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘গত এপ্রিল মাস পর্যন্ত চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের দশ মাসে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির ৫০ দশমিক ৩৩ শতাংশ বাস্তবায়িত হয়েছে।’

চলমান বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সংকটের কারণে এবার এডিপি বাস্তবায়ন ‘কিছুটা কম’ হয়েছে বলে জানান তিনি।

চলতি অর্থবছরের শুরু থেকেই এডিপি আওতাভুক্ত প্রকল্পগুলোর মধ্যে উচ্চ অগ্রাধিকার, অগ্রাধিকার ও কম অগ্রাধিকার হিসেবে বাছাই করে প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। তাতে কম গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পগুলোতে বরাদ্দ কম হওয়ায় সেসব প্রায় স্থবির হয়ে আছে। এর ফলে বাস্তবায়নও কম হয়েছে।

এম এ মান্নান বলেন, ‘গত এপ্রিল পর্যন্ত সংশোধিত এডিপি বরাদ্দ থেকে মাত্র ১ লাখ ১৯ হাজার ৬৪ কোটি টাকা ব্যয় করা সম্ভব হয়েছে।’

চলতি অর্থবছরের প্রথম দশ মাস পর্যন্ত এই ব্যয় ২০২০-২১ অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৪ শতাংশ কম। ওই অর্থ বছরের এপ্রিল পর্যন্ত বাস্তবায়িত হয়েছিল ৫৫ শতাংশ।

চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য সরকার ২ লাখ ৫৬ হাজার কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন দিয়েছিল। গত ১ মার্চ তা সংশোধন করে প্রকল্প সহায়তা থেকে ১৮ হাজার ৫০০ কোটি টাকা কমিয়ে ২ লাখ ৩৬ হাজার ৫৬০ কোটি টাকায় নামিয়ে আনা হয়।

শনিবার, ১৩ মে ২০২৩ , ৩০ বৈশাখ ১৪৩০, ২২ ‍শাওয়াল ১৪৪৪

১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন মাত্র ৫০ শতাংশ

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

চলতি অর্থবছরের এপ্রিল পর্যন্ত ১০ মাসে সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির মাত্র ৫০ শতাংশ বাস্তবায়ন হওয়ার তথ্য দিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। গত বৃহস্পতিবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ বৈঠক পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘গত এপ্রিল মাস পর্যন্ত চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের দশ মাসে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির ৫০ দশমিক ৩৩ শতাংশ বাস্তবায়িত হয়েছে।’

চলমান বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সংকটের কারণে এবার এডিপি বাস্তবায়ন ‘কিছুটা কম’ হয়েছে বলে জানান তিনি।

চলতি অর্থবছরের শুরু থেকেই এডিপি আওতাভুক্ত প্রকল্পগুলোর মধ্যে উচ্চ অগ্রাধিকার, অগ্রাধিকার ও কম অগ্রাধিকার হিসেবে বাছাই করে প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। তাতে কম গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পগুলোতে বরাদ্দ কম হওয়ায় সেসব প্রায় স্থবির হয়ে আছে। এর ফলে বাস্তবায়নও কম হয়েছে।

এম এ মান্নান বলেন, ‘গত এপ্রিল পর্যন্ত সংশোধিত এডিপি বরাদ্দ থেকে মাত্র ১ লাখ ১৯ হাজার ৬৪ কোটি টাকা ব্যয় করা সম্ভব হয়েছে।’

চলতি অর্থবছরের প্রথম দশ মাস পর্যন্ত এই ব্যয় ২০২০-২১ অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৪ শতাংশ কম। ওই অর্থ বছরের এপ্রিল পর্যন্ত বাস্তবায়িত হয়েছিল ৫৫ শতাংশ।

চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য সরকার ২ লাখ ৫৬ হাজার কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন দিয়েছিল। গত ১ মার্চ তা সংশোধন করে প্রকল্প সহায়তা থেকে ১৮ হাজার ৫০০ কোটি টাকা কমিয়ে ২ লাখ ৩৬ হাজার ৫৬০ কোটি টাকায় নামিয়ে আনা হয়।