জিডিপিতে পাটের অবদান বাড়ছে : রুহুল আমিন

পিপিসি অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. রুহুল আমিন তালুকদার বলেন, ‘আমরা জানি জিডিপিতে পাটের অবদান ১.৪% এবং কৃষিতে ২৬% অর্থাৎ মোট জিডিপিতে পাটের অবদান ৮ বিলিয়নের মতো। আবার ৮ বিলিয়নের ১.২ বিলিয়ন আমরা রপ্তানি করি। তাহলে পাটের রপ্তানি টু জিডিপি অনুপাত অন্য যেকোন সেক্টরের থেকে বেশি। ফলে জিডিপিতে পাটের অবদান বাড়ছে। ’

গতকাল বিজেআরআই সম্মেলন কক্ষে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) বাস্তবায়নে বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিজেআরআই) এর সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম, অগ্রগতি, প্রতিবন্ধকতা ও ভবিষ্যৎ করণীয় পর্যালোচনা শীর্ষক একটি কর্মশালা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘তিনি পাটের উৎপাদনশীলতাকে দ্বিগুণ করার আহ্বান জানান এবং বলেন স্ব-স্ব ইনস্টিটিউটকে তাদের পণ্যের উৎপাদনশীলতা বাড়ানোর চেষ্টা করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘উৎপাদনশীলতা বাড়লে ইউনিট প্রতি খরচ কমবে, ইউনিট প্রতি খরচ কমলে লভ্যাংশের অনুপাত বাড়বে, আর লভ্যাংশের অনুপাত বাড়লে আয় বাড়বে, ফলে দারিদ্রতা কমবে। একই সঙ্গে জীবন-যাত্রার মান বাড়বে, ক্ষুধার্থতা কমবে এবং খাদ্য নিরাপত্তা বাড়বে। এভাবে চক্রাকারে একটির সঙ্গে আর একটি জড়িত এবং সামগ্রিকভাবে দেশের উন্নতি হবে।’

রুহুল আমিন তালুকদার বলেন, ‘আমরা যদি এসডিজির কথা বলি তবে উৎপাদনশীলতায় অবদান রাখতে হবে, আয় বৃদ্ধিতে অবদান রাখতে হবে, টেকসই কৃষিতে অবদান রাখতে হবে।

আরও খবর
কার্ডে ৪৫ হাজার কোটি টাকার রেকর্ড লেনদেন
‘চ্যালেঞ্জের’ মুদ্রানীতি সাজাতে রোববার বসছে বাংলাদেশ ব্যাংক
বীমার দাপটে ৯০০ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে লেনদেন
আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ‘ক্লাউড কম্পিউটিং’ তদারকি জোরদারের নির্দেশ
পেমেন্ট সার্ভিস প্রোভাইডার হিসেবে লাইসেন্স পেলো ‘এজিবি টেকনোলজিস’
ফ্যান্টাসি কিংডম, ওয়াটার কিংডম, ফয়’স লেক, সি-ওয়ার্ল্ডে বিকাশ পেমেন্টে ক্যাশব্যাক
আর্থিক প্রতিষ্ঠানের চূড়ান্ত অনুমোদন পেলো নগদ ফাইন্যান্স
উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড-এর ৪০তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত
ডিএমসিবি’র ১৩৭তম ‘ময়নামতি শাখা’ কুমিল্লা উদ্বোধন
বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের ত্রৈমাসিক ব্যবসায়িক সম্মেলন-২০২৩ অনুষ্ঠিত

শুক্রবার, ১৯ মে ২০২৩ , ০৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০, ২৮ শাওয়াল ১৪৪৪

জিডিপিতে পাটের অবদান বাড়ছে : রুহুল আমিন

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

পিপিসি অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. রুহুল আমিন তালুকদার বলেন, ‘আমরা জানি জিডিপিতে পাটের অবদান ১.৪% এবং কৃষিতে ২৬% অর্থাৎ মোট জিডিপিতে পাটের অবদান ৮ বিলিয়নের মতো। আবার ৮ বিলিয়নের ১.২ বিলিয়ন আমরা রপ্তানি করি। তাহলে পাটের রপ্তানি টু জিডিপি অনুপাত অন্য যেকোন সেক্টরের থেকে বেশি। ফলে জিডিপিতে পাটের অবদান বাড়ছে। ’

গতকাল বিজেআরআই সম্মেলন কক্ষে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) বাস্তবায়নে বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিজেআরআই) এর সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম, অগ্রগতি, প্রতিবন্ধকতা ও ভবিষ্যৎ করণীয় পর্যালোচনা শীর্ষক একটি কর্মশালা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘তিনি পাটের উৎপাদনশীলতাকে দ্বিগুণ করার আহ্বান জানান এবং বলেন স্ব-স্ব ইনস্টিটিউটকে তাদের পণ্যের উৎপাদনশীলতা বাড়ানোর চেষ্টা করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘উৎপাদনশীলতা বাড়লে ইউনিট প্রতি খরচ কমবে, ইউনিট প্রতি খরচ কমলে লভ্যাংশের অনুপাত বাড়বে, আর লভ্যাংশের অনুপাত বাড়লে আয় বাড়বে, ফলে দারিদ্রতা কমবে। একই সঙ্গে জীবন-যাত্রার মান বাড়বে, ক্ষুধার্থতা কমবে এবং খাদ্য নিরাপত্তা বাড়বে। এভাবে চক্রাকারে একটির সঙ্গে আর একটি জড়িত এবং সামগ্রিকভাবে দেশের উন্নতি হবে।’

রুহুল আমিন তালুকদার বলেন, ‘আমরা যদি এসডিজির কথা বলি তবে উৎপাদনশীলতায় অবদান রাখতে হবে, আয় বৃদ্ধিতে অবদান রাখতে হবে, টেকসই কৃষিতে অবদান রাখতে হবে।