বিএনপির মুখে গণঅভ্যুত্থানের কথা ‘হাস্যকর’, বললেন কাদের

বিএনপি নেতারা সরকারের বিরুদ্ধে গণ-অভ্যুত্থান সৃষ্টির যে কথা বলছেন, তা ‘হাস্যকর’ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘বিএনপির লক্ষ্য যে কোন উপায়ে ক্ষমতা দখল, এর বিপরীতে আওয়ামী লীগের পথ চলার শক্তি শুধু জনগণ। ফলে বিএনপির মুখে গণ-অভ্যুত্থানের কথা হাস্যকর।’ গতকাল এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন তিনি।

‘বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান অসাংবিধানিক উপায়ে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে গণতান্ত্রিক সংস্কৃতি ও মূল্যবোধকে ধ্বংস করেছিলেন’- এমন অভিযোগ করে বিবৃতিতে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সামরিক স্বৈরাচারের বুটের তলায় পিষ্ট হয়েছিল এদেশের মানুষের সাংবিধানিক ও গণতান্ত্রিক অধিকার। কারফিউ বলবৎ রেখে দেশে নির্বাচনের নামে প্রহসন সৃষ্টি করে জনগণের সঙ্গে তামাশা করেছিল। ভোট ডাকাতির প্রতিভূ শক্তি বিএনপির মুখে তাই গণতন্ত্রের কথা মানায় না।’

২০১৬ সালের ১ জুলাই রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার পর কূটনীতিকদের জন্য বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা করেছিল সরকার। সম্প্রতি এই বাড়তি নিরাপত্তা প্রত্যাহারের সরকারি সিদ্ধান্তের বিষয়ে বিএনপি নেতারা সমালোচনা করছেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, এখন আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি উন্নত হওয়ায় সেই বাড়তি নিরাপত্তা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত সরকার নিয়েছে।

আন্তর্জাতিক নিয়মে কূটনীতিকদের নিরাপত্তা বহাল থাকবে

এ বিষয়ে বিবৃতিতে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির শাসনামলে তাদের সৃষ্ট জঙ্গিবাদী শক্তির হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার পর কূটনীতিকদের জন্য বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হয়েছিল। এটি কোন স্থায়ী নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল না।’ তিনি বলেন, ‘বিএনপির আমলে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের অভয়ারণ্যে পরিণত বাংলাদেশে আজ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা দৃঢ়ভাবে বলতে চাই, বিদেশি যেসব দূতাবাস এবং রাষ্ট্রদূতরা বাংলাদেশে আছেন তাদের সব নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বর্তমান সরকার কোন প্রকার শিথিলতা প্রদর্শন করবে না।’

কূটনীতিকদের নিরাপত্তা ইস্যূতে বিএনপি নেতাদের সমালোচনামূলক বক্তব্যের নিন্দা করেন ও প্রতিবাদ জানান ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক নিয়মানুসারে বিদেশি কূটনীতিকেরা স্থায়ীভাবে যে নিরাপত্তা পেয়ে আসছেন, তা বহাল থাকবে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির তথাকথিত আন্দোলন হালে পানি না পাওয়ায় দলটির নেতারা প্রতিদিন এক ঘেয়ে বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। তারা (বিএনপি) শুধু সরকারের নামে সমালোচনা করছেন। শেখ হাসিনার গৃহীত উন্নয়ন নীতির কারণে অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রার বিপরীতে বিএনপির হাতিয়ার হলো, ষড়যন্ত্র, মিথ্যাচার, অপপ্রচার ও উসকানিমূলক বক্তব্য।’

শুক্রবার, ১৯ মে ২০২৩ , ০৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০, ২৮ শাওয়াল ১৪৪৪

বিএনপির মুখে গণঅভ্যুত্থানের কথা ‘হাস্যকর’, বললেন কাদের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

বিএনপি নেতারা সরকারের বিরুদ্ধে গণ-অভ্যুত্থান সৃষ্টির যে কথা বলছেন, তা ‘হাস্যকর’ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘বিএনপির লক্ষ্য যে কোন উপায়ে ক্ষমতা দখল, এর বিপরীতে আওয়ামী লীগের পথ চলার শক্তি শুধু জনগণ। ফলে বিএনপির মুখে গণ-অভ্যুত্থানের কথা হাস্যকর।’ গতকাল এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন তিনি।

‘বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান অসাংবিধানিক উপায়ে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে গণতান্ত্রিক সংস্কৃতি ও মূল্যবোধকে ধ্বংস করেছিলেন’- এমন অভিযোগ করে বিবৃতিতে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সামরিক স্বৈরাচারের বুটের তলায় পিষ্ট হয়েছিল এদেশের মানুষের সাংবিধানিক ও গণতান্ত্রিক অধিকার। কারফিউ বলবৎ রেখে দেশে নির্বাচনের নামে প্রহসন সৃষ্টি করে জনগণের সঙ্গে তামাশা করেছিল। ভোট ডাকাতির প্রতিভূ শক্তি বিএনপির মুখে তাই গণতন্ত্রের কথা মানায় না।’

২০১৬ সালের ১ জুলাই রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার পর কূটনীতিকদের জন্য বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা করেছিল সরকার। সম্প্রতি এই বাড়তি নিরাপত্তা প্রত্যাহারের সরকারি সিদ্ধান্তের বিষয়ে বিএনপি নেতারা সমালোচনা করছেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, এখন আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি উন্নত হওয়ায় সেই বাড়তি নিরাপত্তা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত সরকার নিয়েছে।

আন্তর্জাতিক নিয়মে কূটনীতিকদের নিরাপত্তা বহাল থাকবে

এ বিষয়ে বিবৃতিতে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির শাসনামলে তাদের সৃষ্ট জঙ্গিবাদী শক্তির হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার পর কূটনীতিকদের জন্য বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হয়েছিল। এটি কোন স্থায়ী নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল না।’ তিনি বলেন, ‘বিএনপির আমলে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের অভয়ারণ্যে পরিণত বাংলাদেশে আজ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা দৃঢ়ভাবে বলতে চাই, বিদেশি যেসব দূতাবাস এবং রাষ্ট্রদূতরা বাংলাদেশে আছেন তাদের সব নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বর্তমান সরকার কোন প্রকার শিথিলতা প্রদর্শন করবে না।’

কূটনীতিকদের নিরাপত্তা ইস্যূতে বিএনপি নেতাদের সমালোচনামূলক বক্তব্যের নিন্দা করেন ও প্রতিবাদ জানান ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক নিয়মানুসারে বিদেশি কূটনীতিকেরা স্থায়ীভাবে যে নিরাপত্তা পেয়ে আসছেন, তা বহাল থাকবে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির তথাকথিত আন্দোলন হালে পানি না পাওয়ায় দলটির নেতারা প্রতিদিন এক ঘেয়ে বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। তারা (বিএনপি) শুধু সরকারের নামে সমালোচনা করছেন। শেখ হাসিনার গৃহীত উন্নয়ন নীতির কারণে অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রার বিপরীতে বিএনপির হাতিয়ার হলো, ষড়যন্ত্র, মিথ্যাচার, অপপ্রচার ও উসকানিমূলক বক্তব্য।’