শেষ লীগ ম্যাচে হেরেও বার্সেলোনার উৎসব

বার্সেলোনা লা লিগা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরের ম্যাচেই নিজেদের মাঠে পরাজিত হয়েছে। গত শনিবার ন্যু ক্যাম্পে তারা ২-১ গোলে হেরে যায় রিয়াল সোসিয়েদাদের কাছে। অবশ্য এ পরাজয় তাদের লীগ শিরোপা নিয়ে আনন্দ করার ক্ষেত্রে কোন বাধা হতে পারেনি। ম্যাচ শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে বার্সেলোনার কাছে লা লিগা চ্যাম্পিয়ন ট্রফি হস্তান্তর করা হয় এবং তারা সেটি নিয়ে মাঠে আনন্দও করে।

রিয়াল সোসিয়েদাদের জন্য এ জয়টি ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তারা চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনাকে পরাজিত করে পয়েন্ট তালিকার চতুর্থ স্থানে নিজেদের অবস্থান মজবুত করেছে। ৫ম স্থানে থাকা ভিয়ারিয়ালের চেয়ে তারা এগিয়ে গেছে ৫ পয়েন্টে। লা লিগার শীর্ষ স্থানীয় চারটি দল পরের মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে খেলার সুযোগ পায়।

সোসিয়েদাদের পক্ষে প্রথমার্ধে গোল করেন মিকেল মেরিনো এবং ৭২ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান আলেকজান্ডার সোরলথ। খেলার একেবারে শেষ সময়ে বার্সেলোনার পক্ষে একটি গোল পরিশোধ করেন রবার্ট লেভানদভস্কি।

বার্সেলোনা মূলত গত সপ্তায় ৪-২ গোলে স্পানিয়লকে পরাজিত করেই লীগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে যায়। বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর স্পানিয়ল সমর্থকদের বাধার কারণে শিরোপা জয়ের উৎসব করতে পারেনি। তাই তাদের আসল উৎসব হয় এ ম্যাচ শেষে।

ফলে এ ম্যাচে তারা খেলতে নামে লীগ চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই। প্রতিপক্ষ সোসিয়েদাদ ম্যাচের আগে বার্সেলোনাকে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে গার্ড অব অনার  দেয়। ম্যাচ শেষে বার্সেলোনার কোচ জাভি হার্নান্দেজ এক বিবৃতিতে বলেন, ‘ক্লাবের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং খেলোয়াড়দের ধন্যবাদ। তারা মাঠে সফলতার জন্য নিজেদের উজাড় করে দিয়ে খেলেছেন। ধন্যবাদ সমর্থকদেরও। তাদের সমর্থন ছাড়া আমাদের পক্ষে এ অসাধারণ সাফল্য অর্জন করা সম্ভব হতো না। মাঠে উপস্থিত হয়ে, দলের সঙ্গে রাস্তায় আনন্দ করে তারা আমাদের উৎসাহ জুগিয়েছেন।’

এদিকে বার্সেলোনাকে হারিয়ে খুব খুশি সোসিয়েদাদ। গোলদাতা মেরিনো বলেন, ‘এখানে জিততে পারা ঐতিহাসিক সাফল্য। প্রতিপক্ষ দলের জন্য এখানে খেলা সব সময়ই কঠিন।’ সোসিয়েদাদ ১৯৯১ সালের পর এই প্রথম ন্যু ক্যাম্পে জয়ী হলো। তিনি আরো বলেন, ‘আমার দল শেষবার যখন এখানে জয়ী হয় তখন আমার জন্মই হয়নি। লক্ষ্য অর্জনের জন্য এ জয়টা আমাদের খুব দরকার ছিল। আজ আমরা সত্যিই অসাধারণ খেলেছি।’

সোমবার, ২২ মে ২০২৩ , ০৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০, ০২ জিলক্বদ শাওয়াল ১৪৪৪

শেষ লীগ ম্যাচে হেরেও বার্সেলোনার উৎসব

সংবাদ স্পোর্টস ডেস্ক

image

বার্সেলোনা লা লিগা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরের ম্যাচেই নিজেদের মাঠে পরাজিত হয়েছে। গত শনিবার ন্যু ক্যাম্পে তারা ২-১ গোলে হেরে যায় রিয়াল সোসিয়েদাদের কাছে। অবশ্য এ পরাজয় তাদের লীগ শিরোপা নিয়ে আনন্দ করার ক্ষেত্রে কোন বাধা হতে পারেনি। ম্যাচ শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে বার্সেলোনার কাছে লা লিগা চ্যাম্পিয়ন ট্রফি হস্তান্তর করা হয় এবং তারা সেটি নিয়ে মাঠে আনন্দও করে।

রিয়াল সোসিয়েদাদের জন্য এ জয়টি ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তারা চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনাকে পরাজিত করে পয়েন্ট তালিকার চতুর্থ স্থানে নিজেদের অবস্থান মজবুত করেছে। ৫ম স্থানে থাকা ভিয়ারিয়ালের চেয়ে তারা এগিয়ে গেছে ৫ পয়েন্টে। লা লিগার শীর্ষ স্থানীয় চারটি দল পরের মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে খেলার সুযোগ পায়।

সোসিয়েদাদের পক্ষে প্রথমার্ধে গোল করেন মিকেল মেরিনো এবং ৭২ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান আলেকজান্ডার সোরলথ। খেলার একেবারে শেষ সময়ে বার্সেলোনার পক্ষে একটি গোল পরিশোধ করেন রবার্ট লেভানদভস্কি।

বার্সেলোনা মূলত গত সপ্তায় ৪-২ গোলে স্পানিয়লকে পরাজিত করেই লীগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে যায়। বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর স্পানিয়ল সমর্থকদের বাধার কারণে শিরোপা জয়ের উৎসব করতে পারেনি। তাই তাদের আসল উৎসব হয় এ ম্যাচ শেষে।

ফলে এ ম্যাচে তারা খেলতে নামে লীগ চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই। প্রতিপক্ষ সোসিয়েদাদ ম্যাচের আগে বার্সেলোনাকে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে গার্ড অব অনার  দেয়। ম্যাচ শেষে বার্সেলোনার কোচ জাভি হার্নান্দেজ এক বিবৃতিতে বলেন, ‘ক্লাবের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং খেলোয়াড়দের ধন্যবাদ। তারা মাঠে সফলতার জন্য নিজেদের উজাড় করে দিয়ে খেলেছেন। ধন্যবাদ সমর্থকদেরও। তাদের সমর্থন ছাড়া আমাদের পক্ষে এ অসাধারণ সাফল্য অর্জন করা সম্ভব হতো না। মাঠে উপস্থিত হয়ে, দলের সঙ্গে রাস্তায় আনন্দ করে তারা আমাদের উৎসাহ জুগিয়েছেন।’

এদিকে বার্সেলোনাকে হারিয়ে খুব খুশি সোসিয়েদাদ। গোলদাতা মেরিনো বলেন, ‘এখানে জিততে পারা ঐতিহাসিক সাফল্য। প্রতিপক্ষ দলের জন্য এখানে খেলা সব সময়ই কঠিন।’ সোসিয়েদাদ ১৯৯১ সালের পর এই প্রথম ন্যু ক্যাম্পে জয়ী হলো। তিনি আরো বলেন, ‘আমার দল শেষবার যখন এখানে জয়ী হয় তখন আমার জন্মই হয়নি। লক্ষ্য অর্জনের জন্য এ জয়টা আমাদের খুব দরকার ছিল। আজ আমরা সত্যিই অসাধারণ খেলেছি।’