নিত্যপণ্যের দামে লাগাম টানুন

নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম কিছুতেই কমছে না। এতে সাধারণ জনগণের জীবনে কষ্টের আর শেষ নেই। বাজারে শীতকালীন সবজির সরবরাহ বাড়লেও দাম এখনো চড়া।

আলু-পেঁয়াজের দামও মধ্যবিত্তের আয়ত্তের বাইরে! দ্রব্যের দামের তুলনায় ভোক্তার আয় অপরিবর্তনশীল হওয়ায় আয়- ব্যয়ের ভারসাম্য হারাচ্ছে অল্প আয়ের মানুষ। বাজারে বিরাজ করছে অস্থিরতা। মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তের হাহাকার উপেক্ষা করে অসাধু ব্যবসায়ীরা লাভের গুড় হিসেবে অতিরিক্ত মুনাফা পাবার আশায় নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসমূহ অযাতিতভাবে মজুদ রেখে থাকে- যা মূলত বাজারে এমন সংকটাপন্ন অবস্থা সৃষ্টির জন্য দায়ী! তবে বর্তমানে দেশ ও আন্তর্জাতিক অবস্থার পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে রাজনৈতিক অস্থিরতা, আমদানির অভাব, আয় ও ব্যয়ের ভারসাম্যহীনতা, স্থানীয় পণ্যের বাজারে দ্রব্যের দাম নিয়ন্ত্রণে সরকারি তদারকির অভাবকে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির অন্যতম কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা যায়।

সাধারণ জনগণের জীবনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনতে ও উচ্চ মূল্যস্ফীতি রোধে জনগণের আয়-ব্যয়ের মাঝে ভারসাম্য সৃষ্টি, নিত্য প্রয়াজনীয় দ্রব্যের স্থিতিশীল দাম নির্ধারণ, আমদানির পরিমাণ বাড়ানো ও তা স্থানীয় বাজারে সরবরাহ নিশ্চিতকরণ, সরকারিভাবে দাম নিয়ন্ত্রণে তদারকি বাড়ানো, নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে ভোক্তার অধিকার সংরক্ষণই পারে ভোক্তাদের নাভিশ্বাস দূর করতে।

পাশাপাশি দেশে অর্থনৈতিক মন্দা সৃষ্টিতে ব্রতী অসাধু ব্যবসায়ীদের সমূলে উৎপাটন করতে সরকারের বলিষ্ঠ উদ্যোগ গ্রহণ ও তার পূর্ণ বাস্তবায়নের বিকল্প নেই। কারণ সাধারণ জনগণের জীবনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনা এখন শুধু সময়ের দাবি।

আফছানা রহমান মীম

মঙ্গলবার, ১৪ নভেম্বর ২০২৩ , ২৮ কার্তিক ১৪৩০, ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৫

নিত্যপণ্যের দামে লাগাম টানুন

নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম কিছুতেই কমছে না। এতে সাধারণ জনগণের জীবনে কষ্টের আর শেষ নেই। বাজারে শীতকালীন সবজির সরবরাহ বাড়লেও দাম এখনো চড়া।

আলু-পেঁয়াজের দামও মধ্যবিত্তের আয়ত্তের বাইরে! দ্রব্যের দামের তুলনায় ভোক্তার আয় অপরিবর্তনশীল হওয়ায় আয়- ব্যয়ের ভারসাম্য হারাচ্ছে অল্প আয়ের মানুষ। বাজারে বিরাজ করছে অস্থিরতা। মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তের হাহাকার উপেক্ষা করে অসাধু ব্যবসায়ীরা লাভের গুড় হিসেবে অতিরিক্ত মুনাফা পাবার আশায় নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসমূহ অযাতিতভাবে মজুদ রেখে থাকে- যা মূলত বাজারে এমন সংকটাপন্ন অবস্থা সৃষ্টির জন্য দায়ী! তবে বর্তমানে দেশ ও আন্তর্জাতিক অবস্থার পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে রাজনৈতিক অস্থিরতা, আমদানির অভাব, আয় ও ব্যয়ের ভারসাম্যহীনতা, স্থানীয় পণ্যের বাজারে দ্রব্যের দাম নিয়ন্ত্রণে সরকারি তদারকির অভাবকে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির অন্যতম কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা যায়।

সাধারণ জনগণের জীবনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনতে ও উচ্চ মূল্যস্ফীতি রোধে জনগণের আয়-ব্যয়ের মাঝে ভারসাম্য সৃষ্টি, নিত্য প্রয়াজনীয় দ্রব্যের স্থিতিশীল দাম নির্ধারণ, আমদানির পরিমাণ বাড়ানো ও তা স্থানীয় বাজারে সরবরাহ নিশ্চিতকরণ, সরকারিভাবে দাম নিয়ন্ত্রণে তদারকি বাড়ানো, নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে ভোক্তার অধিকার সংরক্ষণই পারে ভোক্তাদের নাভিশ্বাস দূর করতে।

পাশাপাশি দেশে অর্থনৈতিক মন্দা সৃষ্টিতে ব্রতী অসাধু ব্যবসায়ীদের সমূলে উৎপাটন করতে সরকারের বলিষ্ঠ উদ্যোগ গ্রহণ ও তার পূর্ণ বাস্তবায়নের বিকল্প নেই। কারণ সাধারণ জনগণের জীবনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনা এখন শুধু সময়ের দাবি।

আফছানা রহমান মীম