গোপালগঞ্জে স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং ভাষার ওপর ২ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রোগ্রামিং-শিক্ষা কার্যক্রমের সহায়ক হিসেবে তৈরী এবং প্রাথমিক শিক্ষাক্রমের শিক্ষকদেরকে স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিংয়ে আরো বেশি দক্ষ করার উদ্দেশ্য নিয়ে গত ৫-৬ জুলাই গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সদর উপজেলার ১১৩ জন শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হলো স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং ভাষার উপর ২ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা। গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ, স্ক্র্যাচ বাংলাদেশের যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত দুই দিনব্যাপী শিক্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালার প্রথম পর্বের সহযোগিতায় ছিল সিএসএল টেকনোলজিস লিমিটেড এবং বাংলাদেশ ওপেনসোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন)।

এ কর্মশালার প্রথম পর্বের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহসিন উদ্দীন বলেন, বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচুর সময় নষ্টকারী কন্টেন্টের আধিক্য দেখা যাচ্ছে। এর মাধ্যমে আমাদের সন্তানদের মেধা ও উদ্ভাবনী ক্ষমতা বিনষ্ট হচ্ছে। স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং সম্পর্কিত ইউটিউব কন্টেন্টগুলো দেখার পাশাপাশি নিয়মিত প্রাকটিসের মাধ্যমে আমাদের সন্তানরা এ পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে পারবে বলে আমার বিশ^াস। কর্মশালায় সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার পরিমল চন্দ্র বালা, সহকারী শিক্ষা অফিসারগণ সহ আয়োজক হিসেবে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার পক্ষ থেকে গোবরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম চৌধুরী টুটুল উপস্থিত ছিলেন।

দুইদিনের এই কর্মশালায় ব্লকভিত্তিক প্রোগ্রামিং ভাষা স্ক্র্যাচ দিয়ে শিক্ষক-শিক্ষিকাগণকে প্রোগ্রামিং ও গণিতের ধারণা দিয়ে বিভিন্ন যুক্তি ব্যবহার করে গেইম এবং এনিমেশন তৈরি করার বিষয়গুলো হাতে কলমে দেখানো হয়। শিক্ষক-শিক্ষিকাগণ এ প্রোগ্রামিং কর্মশালায় অংশগ্রহণ করা নিয়ে তাদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। এ প্রসঙ্গে নিলখী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা হাফিজা খানম বলেন, স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিংয়ের মাধ্যমে বাচ্চারা যুক্তিভিত্তিক সমস্যা সমাধানে আগ্রহী এবং এটি তাদের মোবাইল আসক্তি দূর করে গঠনমূলক কর্মকান্ডে উৎসাহিত করবে।

এ ধরনের প্রশিক্ষণ কর্মশালার নিয়মিত আয়োজন দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রোগ্রামিং শিক্ষা কার্যক্রমে সহায়ক হওয়ার পাশাপাশি সকলস্তরের প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রোগ্রামিং ভীতি দূর করে জটিল সমস্যা সমাধানে আগ্রহী করে তুলবে বলে মনে করেন বিডিওএসএন সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান।

উল্লেখ্য, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ২২৬টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জন্য আয়োজিত এ প্রশিক্ষণ কর্মশালার প্রথম পর্বে ১১৩ জন শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় এই প্রশিক্ষণ কর্মশালা। প্রথম পর্বে প্রত্যেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে একজন করে আইসিটি শিক্ষক এ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। পরবর্তী ধাপে বাকি ১১৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাগণদের নিয়ে কর্মশালার দ্বিতীয় পর্ব আয়োজন করা হবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪ , ২৬ আষাড় ১৪৩১ ৩ মহরম ১৪৪৫

গোপালগঞ্জে স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং ভাষার ওপর ২ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

image

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রোগ্রামিং-শিক্ষা কার্যক্রমের সহায়ক হিসেবে তৈরী এবং প্রাথমিক শিক্ষাক্রমের শিক্ষকদেরকে স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিংয়ে আরো বেশি দক্ষ করার উদ্দেশ্য নিয়ে গত ৫-৬ জুলাই গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সদর উপজেলার ১১৩ জন শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হলো স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং ভাষার উপর ২ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা। গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ, স্ক্র্যাচ বাংলাদেশের যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত দুই দিনব্যাপী শিক্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালার প্রথম পর্বের সহযোগিতায় ছিল সিএসএল টেকনোলজিস লিমিটেড এবং বাংলাদেশ ওপেনসোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন)।

এ কর্মশালার প্রথম পর্বের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহসিন উদ্দীন বলেন, বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচুর সময় নষ্টকারী কন্টেন্টের আধিক্য দেখা যাচ্ছে। এর মাধ্যমে আমাদের সন্তানদের মেধা ও উদ্ভাবনী ক্ষমতা বিনষ্ট হচ্ছে। স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং সম্পর্কিত ইউটিউব কন্টেন্টগুলো দেখার পাশাপাশি নিয়মিত প্রাকটিসের মাধ্যমে আমাদের সন্তানরা এ পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে পারবে বলে আমার বিশ^াস। কর্মশালায় সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার পরিমল চন্দ্র বালা, সহকারী শিক্ষা অফিসারগণ সহ আয়োজক হিসেবে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার পক্ষ থেকে গোবরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম চৌধুরী টুটুল উপস্থিত ছিলেন।

দুইদিনের এই কর্মশালায় ব্লকভিত্তিক প্রোগ্রামিং ভাষা স্ক্র্যাচ দিয়ে শিক্ষক-শিক্ষিকাগণকে প্রোগ্রামিং ও গণিতের ধারণা দিয়ে বিভিন্ন যুক্তি ব্যবহার করে গেইম এবং এনিমেশন তৈরি করার বিষয়গুলো হাতে কলমে দেখানো হয়। শিক্ষক-শিক্ষিকাগণ এ প্রোগ্রামিং কর্মশালায় অংশগ্রহণ করা নিয়ে তাদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। এ প্রসঙ্গে নিলখী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা হাফিজা খানম বলেন, স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিংয়ের মাধ্যমে বাচ্চারা যুক্তিভিত্তিক সমস্যা সমাধানে আগ্রহী এবং এটি তাদের মোবাইল আসক্তি দূর করে গঠনমূলক কর্মকান্ডে উৎসাহিত করবে।

এ ধরনের প্রশিক্ষণ কর্মশালার নিয়মিত আয়োজন দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রোগ্রামিং শিক্ষা কার্যক্রমে সহায়ক হওয়ার পাশাপাশি সকলস্তরের প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রোগ্রামিং ভীতি দূর করে জটিল সমস্যা সমাধানে আগ্রহী করে তুলবে বলে মনে করেন বিডিওএসএন সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান।

উল্লেখ্য, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ২২৬টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জন্য আয়োজিত এ প্রশিক্ষণ কর্মশালার প্রথম পর্বে ১১৩ জন শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় এই প্রশিক্ষণ কর্মশালা। প্রথম পর্বে প্রত্যেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে একজন করে আইসিটি শিক্ষক এ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। পরবর্তী ধাপে বাকি ১১৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাগণদের নিয়ে কর্মশালার দ্বিতীয় পর্ব আয়োজন করা হবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।