ডেল্টা লাইফের প্রশাসক নিয়োগে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত

ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের প্রশাসক নিয়োগ হাইকোর্টের অবৈধ ঘোষণার তিন দিন পর সে আদেশ স্থগিত করেছে আপিল বিভাগ। গত সোমবার এই আদেশ দেয়া হয়। আগামী ১৬ জানুয়ারি পর্যন্ত এই আদেশ কার্যকর থাকবে বলে গণমাধ্যমে নিশ্চিত করছেন আইনজীবী শাহানা বেগম।

গত ৬ জানুয়ারি ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের প্রশাসক নিয়োগকে অবৈধ বলে রায় দেয় উচ্চ আদালত। সেদিন বিচারপতি খসরুজ্জামান এবং বিচারপতি মাহমুদ হাসান তালুকদার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করে। আদালতের প্রশাসক নিয়োগ অবৈধ রায়ের পর ৬ জানুয়ারি ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ২৪৯তম বোর্ড সভা হয়। এরপর ৮ জানুয়ারি কোম্পানিটির ২৫০তম বোর্ড সভায় আনোয়ারুল হককে মুখ্য নির্বাহীর দায়িত্ব দেয়া হয়।

আনোয়ারুল হক বর্তমানে ডেল্টা লাইফের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) পদে কর্মরত। গত শনিবার কোম্পানিটির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ও কোম্পানি সচিব উত্তম কুমার সাধু স্বাক্ষরিত এক আদেশে এ তথ্য জানানো হয়েছিল।

উল্লেখ্য, গত ৬ জানুয়ারি ডেল্টা লাইফে প্রশাসক নিয়োগকে অবৈধ বলে রায় দেয় উচ্চ আদালত। সেই সঙ্গে কোম্পানিটিতে প্রশাসক নিয়োগের প্রক্রিয়াকেও অবৈধ বলে আদালত। এ রায়ের ফলে ২০২১ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে সাসপেন্ড হওয়া ডেল্টা লাইফের পরিচালনা পর্ষদ বহাল থাকছে এবং কোন প্রশাসক কোম্পানিটিতে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

বীমা গ্রাহকদের স্বার্থ ক্ষুণœ করায় ২০২১ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি কর্তৃপক্ষের সাবেক সদস্য সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লাকে ডেল্টা লাইফে প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ দেয় বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। প্রশাসক হিসেবে সুলতান আবেদীন মোল্লার চার মাস দায়িত্ব পালন শেষে কোম্পানিটির পরামর্শকের দায়িত্বে থাকা সাবেক যুগ্ম সচিব মো. রফিকুল ইসলামকে নতুন প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ দেয় কর্তৃপক্ষ।

গত ১০ অক্টোবর ২০২১ ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে তিনি পদত্যাগ করলে ১৩ অক্টোবর কর্তৃপক্ষের সাবেক সদস্য মো. কুদ্দুস খানকে এ পদে নিয়োগ দেয় বীমা খাতের এই নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

বুধবার, ১২ জানুয়ারী ২০২২ , ২৮ পৌষ ১৪২৮ ৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ডেল্টা লাইফের প্রশাসক নিয়োগে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত

ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের প্রশাসক নিয়োগ হাইকোর্টের অবৈধ ঘোষণার তিন দিন পর সে আদেশ স্থগিত করেছে আপিল বিভাগ। গত সোমবার এই আদেশ দেয়া হয়। আগামী ১৬ জানুয়ারি পর্যন্ত এই আদেশ কার্যকর থাকবে বলে গণমাধ্যমে নিশ্চিত করছেন আইনজীবী শাহানা বেগম।

গত ৬ জানুয়ারি ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের প্রশাসক নিয়োগকে অবৈধ বলে রায় দেয় উচ্চ আদালত। সেদিন বিচারপতি খসরুজ্জামান এবং বিচারপতি মাহমুদ হাসান তালুকদার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করে। আদালতের প্রশাসক নিয়োগ অবৈধ রায়ের পর ৬ জানুয়ারি ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ২৪৯তম বোর্ড সভা হয়। এরপর ৮ জানুয়ারি কোম্পানিটির ২৫০তম বোর্ড সভায় আনোয়ারুল হককে মুখ্য নির্বাহীর দায়িত্ব দেয়া হয়।

আনোয়ারুল হক বর্তমানে ডেল্টা লাইফের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) পদে কর্মরত। গত শনিবার কোম্পানিটির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ও কোম্পানি সচিব উত্তম কুমার সাধু স্বাক্ষরিত এক আদেশে এ তথ্য জানানো হয়েছিল।

উল্লেখ্য, গত ৬ জানুয়ারি ডেল্টা লাইফে প্রশাসক নিয়োগকে অবৈধ বলে রায় দেয় উচ্চ আদালত। সেই সঙ্গে কোম্পানিটিতে প্রশাসক নিয়োগের প্রক্রিয়াকেও অবৈধ বলে আদালত। এ রায়ের ফলে ২০২১ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে সাসপেন্ড হওয়া ডেল্টা লাইফের পরিচালনা পর্ষদ বহাল থাকছে এবং কোন প্রশাসক কোম্পানিটিতে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

বীমা গ্রাহকদের স্বার্থ ক্ষুণœ করায় ২০২১ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি কর্তৃপক্ষের সাবেক সদস্য সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লাকে ডেল্টা লাইফে প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ দেয় বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। প্রশাসক হিসেবে সুলতান আবেদীন মোল্লার চার মাস দায়িত্ব পালন শেষে কোম্পানিটির পরামর্শকের দায়িত্বে থাকা সাবেক যুগ্ম সচিব মো. রফিকুল ইসলামকে নতুন প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ দেয় কর্তৃপক্ষ।

গত ১০ অক্টোবর ২০২১ ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে তিনি পদত্যাগ করলে ১৩ অক্টোবর কর্তৃপক্ষের সাবেক সদস্য মো. কুদ্দুস খানকে এ পদে নিয়োগ দেয় বীমা খাতের এই নিয়ন্ত্রক সংস্থা।