মার্সেল পণ্য কিনে প্রতি ঘণ্টায় পুরস্কার জেতার সুযোগ

ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষ্যে ক্রেতাদের বিশেষ সুবিধা দিতে সারা দেশে আবারও শুরু হলো মার্সেলের ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। এবার চালু হলো সিজন-১৩। এই সিজনেও ক্রেতাদের জন্য থাকছে বিশেষ চমক। মার্সেল পণ্য কিনে ঘণ্টায় ঘণ্টায় নতুন ফ্রিজ, এয়ার কন্ডিশনার, টিভি, ওয়াশিং মেশিন, ওভেন, ব্লেন্ডার, গ্যাস স্টোভ, রাইস কুকার, ফ্যানসহ বিভিন্ন পণ্য ফ্রি পেতে পারেন ক্রেতারা।

গতকাল রাজধানীর মার্সেল করপোরেট অফিসে ‘ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-১৩’ শীর্ষক ডিক্লারেশন প্রোগ্রাম আয়োজন করা হয়। এতে জানানো হয়, গতকাল থেকে সারা দেশে মার্সেল পণ্য কিনে ঘণ্টায় ঘণ্টায় ফ্রি পণ্য দেয়া হবে। পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত চলবে এই ক্যাম্পেইন।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর নজরুল ইসলাম সরকার, ইভা রিজওয়ানা নিলু ও মো. হুমায়ূন কবীর, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এস এম জাহিদ হাসান, আরিফুল আম্বিয়া, ড. মো. সাখাওয়াৎ হোসেন, চিফ মার্কেটিং অফিসার মো. ফিরোজ আলম, ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের প্রধান সমন্বয়ক নাজমুল হোসাইন ইভান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, অনলাইনে দ্রুত সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দেয়ার লক্ষ্যে কাস্টমার ডাটাবেজ তৈরি করছে মার্সেল। এই কার্যক্রম বেগবান করার লক্ষ্যে সারা দেশে চলছে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। এরই ধারাবাহিকতায় এখন চালু হয়েছে সিজন-১৩। ফলে, ওয়ারেন্টি কার্ড হারিয়ে গেলেও দেশের যেকোন মার্সেল সার্ভিস সেন্টার থেকে দ্রুত সেবা পাবেন গ্রাহক। অন্যদিকে সার্ভিস সেন্টারের প্রতিনিধিরাও গ্রাহকের ফিডব্যাক জানতে পারবেন। এ কার্যক্রমে ক্রেতাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে এসব বিশেষ সুবিধা দেয়া হচ্ছে।

সিজন-১৩ চলাকালে ক্রেতারা মার্সেল ফ্রিজ, টিভি, এসি, ওয়াশিং মেশিন, ব্লেন্ডার, মাইক্রোওয়েভ ওভেন, রাইস কুকার, গ্যাস স্টোভ, ফ্যান ইত্যাদি কেনার পর ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করবেন। ক্রেতার নাম, মোবাইল নম্বর এবং সংশ্লিষ্ট পণ্যের বারকোডসহ বিস্তারিত তথ্য মার্সেলের সার্ভারে সংরক্ষণ করা হবে। এরপর স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্রেতার কাছে ফ্রি পণ্য সম্পর্কিত ম্যাসেজ চলে যাবে। দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে সারা দেশে আইএসও সনদপ্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্টের আওতায় ৭৬টি সার্ভিস সেন্টার রয়েছে মার্সেলের। যার প্রেক্ষিতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে পণ্যের সার্ভিস দিতে সক্ষম হচ্ছে দেশীয় প্রতিষ্ঠানটি।

মঙ্গলবার, ১১ জানুয়ারী ২০২২ , ২৭ পৌষ ১৪২৮ ৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

মার্সেল পণ্য কিনে প্রতি ঘণ্টায় পুরস্কার জেতার সুযোগ

ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষ্যে ক্রেতাদের বিশেষ সুবিধা দিতে সারা দেশে আবারও শুরু হলো মার্সেলের ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। এবার চালু হলো সিজন-১৩। এই সিজনেও ক্রেতাদের জন্য থাকছে বিশেষ চমক। মার্সেল পণ্য কিনে ঘণ্টায় ঘণ্টায় নতুন ফ্রিজ, এয়ার কন্ডিশনার, টিভি, ওয়াশিং মেশিন, ওভেন, ব্লেন্ডার, গ্যাস স্টোভ, রাইস কুকার, ফ্যানসহ বিভিন্ন পণ্য ফ্রি পেতে পারেন ক্রেতারা।

গতকাল রাজধানীর মার্সেল করপোরেট অফিসে ‘ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-১৩’ শীর্ষক ডিক্লারেশন প্রোগ্রাম আয়োজন করা হয়। এতে জানানো হয়, গতকাল থেকে সারা দেশে মার্সেল পণ্য কিনে ঘণ্টায় ঘণ্টায় ফ্রি পণ্য দেয়া হবে। পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত চলবে এই ক্যাম্পেইন।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর নজরুল ইসলাম সরকার, ইভা রিজওয়ানা নিলু ও মো. হুমায়ূন কবীর, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এস এম জাহিদ হাসান, আরিফুল আম্বিয়া, ড. মো. সাখাওয়াৎ হোসেন, চিফ মার্কেটিং অফিসার মো. ফিরোজ আলম, ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের প্রধান সমন্বয়ক নাজমুল হোসাইন ইভান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, অনলাইনে দ্রুত সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দেয়ার লক্ষ্যে কাস্টমার ডাটাবেজ তৈরি করছে মার্সেল। এই কার্যক্রম বেগবান করার লক্ষ্যে সারা দেশে চলছে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। এরই ধারাবাহিকতায় এখন চালু হয়েছে সিজন-১৩। ফলে, ওয়ারেন্টি কার্ড হারিয়ে গেলেও দেশের যেকোন মার্সেল সার্ভিস সেন্টার থেকে দ্রুত সেবা পাবেন গ্রাহক। অন্যদিকে সার্ভিস সেন্টারের প্রতিনিধিরাও গ্রাহকের ফিডব্যাক জানতে পারবেন। এ কার্যক্রমে ক্রেতাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে এসব বিশেষ সুবিধা দেয়া হচ্ছে।

সিজন-১৩ চলাকালে ক্রেতারা মার্সেল ফ্রিজ, টিভি, এসি, ওয়াশিং মেশিন, ব্লেন্ডার, মাইক্রোওয়েভ ওভেন, রাইস কুকার, গ্যাস স্টোভ, ফ্যান ইত্যাদি কেনার পর ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করবেন। ক্রেতার নাম, মোবাইল নম্বর এবং সংশ্লিষ্ট পণ্যের বারকোডসহ বিস্তারিত তথ্য মার্সেলের সার্ভারে সংরক্ষণ করা হবে। এরপর স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্রেতার কাছে ফ্রি পণ্য সম্পর্কিত ম্যাসেজ চলে যাবে। দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে সারা দেশে আইএসও সনদপ্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্টের আওতায় ৭৬টি সার্ভিস সেন্টার রয়েছে মার্সেলের। যার প্রেক্ষিতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে পণ্যের সার্ভিস দিতে সক্ষম হচ্ছে দেশীয় প্রতিষ্ঠানটি।